রায়-পরবর্তী সংশোধনী যুদ্ধাপরাধ বিচারকে কলুষিত করবে : এইচআরডব্লিউ

ভূতাপেক্ষ কার্যকারিতা দিয়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল (আইসিটি) আইনে আনা সংশোধনী ট্রাইব্যুনালের স্বচ্ছ বিচারের মানদণ্ডকে অগ্রাহ্য এবং এর বৈধতার ভিত্তিকে দুর্বল করবে। নিউইয়র্ক-ভিত্তিক আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ) এক বিবৃতিতে এমন উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। বিবৃতিতে বলা হয়, ভূতাপেক্ষা কার্যকারিতা দিয়ে আনা সংশোধনী স্বচ্ছ বিচারের মানদণ্ডকে অগ্রাহ্য এবং আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের (আইসিটি) বৈধতার ভিত্তিকে দুর্বল করবে। এই সংশোধনীতে আপিল বিভাগকে আবদুল কাদের মোল্লার যাবজ্জীবন দণ্ডাদেশ পরিবর্তন করে মত্যুদণ্ড দেয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে।

এছাড়া, পাকিস্তানের সাথে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সময় বিভিন্ন অপরাধে অভিযুক্তদের দোষী সাব্যস্ত এবং দণ্ড দেয়ার ক্ষেত্রে সৃষ্ট বিতর্কের মধ্যে পুলিশকে প্রয়োজনীয় পরিস্থিতি ছাড়া শক্তি প্রয়োগ ও আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার থেকে বিরত থাকারও আহ্বান জানিয়েছে এইচআরডব্লিউ।

সংস্থাটির এশিয়া অঞ্চলের পরিচালক ব্র্যাড অ্যাডামস বলেছেন, ‘১৯৭১ সালের যুদ্ধের সময় যুদ্ধাপরাধ ও অন্যান্য গুরুতর অপরাধের শিকার ব্যক্তিদের ন্যায়বিচার পাওয়া জরুরি।’

‘কিন্তু আইনের শাসন অনুসরন করে এমন একটি সরকার আদালতের দেয়া রায় তাদের পছন্দ অনুযায়ী না হওয়ায় তা পরিবর্তন করতে সহজেই ভূতাপেক্ষ কার্যকরিতা দিয়ে আইন পাস করতে পারে না’ যোগ করেন তিনি।

ব্র্যাড অ্যাডমস বলেন, ‘বাংলাদেশ সরকারের এখনই থামা উচিত, তাদের উচিত স্বস্তিতে নিঃশ্বাস নেয়া এবং উচিত প্রস্তাবিত সংশোধনী বাতিল করা; অন্যথায় এই সংশোধনী বিচার প্রক্রিয়াকে প্রহসনে পরিণত করবে।’

সূত্র:রিয়েল-টাইম নিউজ ডটকম

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।