ডেমু ট্রেনের উদ্বোধন: অল্প দূরত্বের দ্রুতগামী, ছোট্ট ও আরামদায়ক ট্রেন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে প্রথমবারের মতো চালু হলো অল্প দূরত্বে দ্রুতগামী রেল যোগাযোগ। রাজধানীর কমলাপুরে প্রধান রেলস্টেশন থেকে বুধবার সকালে এই ডেমু (ডিজেল ইলেক্ট্রিক মাল্টিপল ইউনিট) ট্রেনের উদ্বোধন করলেন ।

কমলাপুর স্টেশন থেকে নারায়ণগঞ্জ ও গাজীপুর পথে এবং চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে কাছাকাছি কয়েকটি পথে চলাচল করবে এই ট্রেন।

প্রতিটি ট্রেনে তিনটি বগি মিলে মোট দৈর্ঘ্য ১৮০ ফুট। সামনের এবং পেছনের বগির শেষ প্রান্তে রয়েছে চালকের বসার কেবিন। দুদিক থেকে ট্রেন চালানো যায়। ইঞ্জিন আলাদা করে জুড়ে দেয়া নয়, বগির নীচেই রয়েছে ইঞ্জিন। রেলওয়ে জানিয়েছে, গড়ে ১০০ কিলোমিটার দূরত্বে চলাচলের উপযোগী করে এইসব ট্রেনে জ্বালানি ধারণক্ষমতা ও ইঞ্জিনের কার্যশক্তি নির্ধারিত রয়েছে।

রেলওয়ের পূর্বাঞ্চল ও পশ্চিমাঞ্চলের বিভিন্ন পথে চালাতে মোট ২০ সেট ডেমু ট্রেন চীন থেকে আমদানি করা হচ্ছে। প্রথম পর্যায়ে ৮ সেট ডেমু ট্রেন দেশে এসে পৌঁছেছে। মোট ৬৬২ কোটি টাকা ব্যয়ে চীনের তানসাং রেলওয়ে ভেহিকল কোম্পানি থেকে ট্রেনগুলো কেনা হয়। আপাতত এগুলো দিয়ে শুরু হলো নতুন এ ট্রেন সেবার। জুন মাস নাগাদ বাকি ট্রেনগুলো এসে পৌঁছলে পর্যায়ক্রমে পথের সংখ্যা বাড়ানো হবে।

পরিকল্পিত পথগুলো হচ্ছে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ-ঢাকা, ঢাকা-ভৈরব-ঢাকা, ঢাকা-জয়দেবপুর-ঢাকা, চট্টগ্রাম-দোহাজারী-চট্টগ্রাম, চট্টগ্রাম-লাকসাম-চট্টগ্রাম, লাকসাম-নোয়াখালী-লাকসাম, লাকসাম-চাঁদপুর-লাকসাম, লালমনিরহাট-বুড়িমারী-লালমনিরহাট, লালমনিরহাট-দিনাজপুর-লালমনিরহাট ও লালমনিরহাট-বগুড়া-লালমনিরহাট।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।