পুনরায় নৌকা মার্কায় ভোট দিতে উপস্থিত জনতাকে শপথ করান প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বর্তমান সরকারে সময় কৃষককে আর সার পাওয়ার জন্য বিভিন্ন জায়গায় দৌড়াতে হয়না, সারই এখন কৃষকের পেছনে দৌড়ায়। তিনি বলেন, এই সরকার কৃষকের ন্যায্য অধিকার পূরণ করেছে। যা বিএনপি সরকার পারেনি। তারা শুধু নিজেদের সম্পদ বানাতে ব্যস্ত ছিলো। মঙ্গলবার বিকালে মুন্সিগঞ্জের মাওয়ায় এক জনসভায় প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, আওয়ামীলগি সরকার মানুষের জীবনধারণকে সহজ করে দিয়েছে। বাংলাদেশের মানুষকে প্রযুক্তিগত দিক থেকে উন্নত করেছে।তিনি উল্ল্যেখ করেন, একসময় যোগাযোগের মাধ্যমগুলোর দাম ছিলো মানুষের ক্রয়সীমার বাহিরে। এই সরকার মোবইল, কম্পউটার ইত্যাদি যন্ত্র মানুষের হাতের মুঠোয় এনে দিয়েছে। এখন ঘরে ঘরে মানুষের হাতে মোবাইলফোন আছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, উন্নয়নের এই ধারা অব্যাহত রাখতে আগামী নির্বাচনে আবারো নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আওয়ামীলীগকে জয়যুক্ত করতে হবে।

এসময় তিনি উপস্থিত জনতাকে পুনরায় নৌকা মার্কায় ভোট দিতে শপথ করান।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকার দেশের অনেক উন্নয়ন করেছে। এ সরকারের আমলেই সমুদ্র বিজয় হয়েছে। সরকার আমলে দেশের ক্রিকেটঅঙ্গনসহ সবকিছুতে সফলতা এসেছে।

বিরোধী দলের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, মানুষ হত্যা করে কোনোভাবেই সরকার উৎকাত করা যাবেনা। গণতন্ত্রের পথে থাকেন। সুষ্ঠ রাজনীতি করে সব কিছুর সমাধান করুন।

বিরোধীদলীয় নেত্রীকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আমাকে ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছিলেন তিনি। আমি নাকি পালানোর পথ খুঁজে পাবো না। আল্টিমেটাম ব্যর্থ হওয়ায় এখন তিনি নিজেই পথহারা পথিক হয়ে গেছেন।

শেখ হাসিনা বলেন, বিরোধীদলীয় নেত্রী কিসের জোরে আল্টিমেটাম দিয়েছিলেন। আসলে যুদ্ধাপরাধী জামায়াত-শিবিরকে বাঁচাতেই এ আল্টিমেটাম দিয়েছিলেন।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাওয়া নদীবন্দরে ২টি উদ্ধারকারী জাহাজ ‘প্রত্যয় ও নির্ভীক’ আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন। পরে সেখানে এক সংক্ষিপ্ত সভায় বক্তব্য রাখেন।

সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সমর্থন দেয়ায় বিরোধীদলীয় নেত্রীকে ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী।

নির্বাচনে অংশগ্রহন করে গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখতে বিরোধীদলীয় নেত্রীকে আহ্বান জানান তিনি।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।