কালো টাকা সাদা না করতে সরকারের প্রতি টিআইবির আহ্বান

মহজোট সরকারের আসন্ন ২০১৩-২০১৪ অর্থ বছরের বাজেটে কালো টাকার বৈধতা দেয়ার সুযোগ অব্যাহত রাখা হচ্ছে- এমন সংবাদে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে দুর্নীতিবিরোধী আন্তর্জাতিক সংগঠন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। আগামী বাজেটে কালো টাকা বৈধ করা তথা সাদা করার সুযোগ না দেয়ার জন্য অর্থমন্ত্রী ও সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, “নামমাত্র করের বিনিময়ে আবাসন খাতে কালো টাকা বৈধ করার যে সুযোগের কথা গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে, তা সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও দুর্নীতি প্রতিরোধে সরকারের অঙ্গীকারের পরিপন্থী। সরকারের এই অবস্থান অসাংবিধানিক, বৈষম্যমূলক, অনৈতিক ও দুর্নীতি সহায়ক।”

তিনি বলেন, “অবৈধ অর্থ উপার্জনকারীকে এভাবে পুরস্কৃত করে আবাসন খাতে অর্থ বিনিয়োগের সুযোগ প্রদান করা হলে তা হবে বৈধ ও সৎ পথে অর্থ উপার্জনকারী নাগরিকের প্রতি বৈষম্যমূলক। আবাসন খাত আরো প্রকটভাবে দুর্নীতি ও অবৈধতার করায়ত্ত হবে।”

তিনি বলেন, “এর ফলে সরকারের নির্বাচনী অঙ্গীকারও লঙ্ঘিত হবে। একই সাথে এ সুযোগ বাংলাদেশের সংবিধানের সাথেও সাংঘর্ষিক। কেননা সংবিধানের ২০ (২) ধারায় স্পষ্ট বলা রয়েছে রাষ্ট্র এমন অবস্থা সৃষ্টির চেষ্টা করবেন, যেখানে সাধারণ নীতি হিসেবে কোন ব্যক্তি অনুপার্জিত আয় ভোগ করতে সমর্থ হবে না।”

বিবৃতিতে ড. জামান বলেন, “কালো টাকা সাদা করার সুযোগ দিলে সমাজে বাস্তবে দুর্নীতি, অবৈধতা ও অনৈতিকতাকে পুরষ্কৃত করা এবং সততা ও বৈধতাকে নিরুৎসাহিত করা হয়। এ ধরনের পদক্ষেপ রাষ্ট্রের নীতিকাঠামোতে দুর্নীতির ক্রমবর্ধমান প্রভাবের উদ্বেগজনক দৃষ্টান্ত। একটি গণতান্ত্রিক সরকার, যার নির্বাচনী অঙ্গীকারে এই অনৈতিকতার বিরুদ্ধে সুস্পষ্ট অবস্থান ছিল, তার কাছে এরূপ আচরণ হতাশাব্যঞ্জক।”

বিবৃতিতে বলা হয় স্বাধীনতার পর থেকে এ পর্যন্ত ১৭ বার কালো টাকা সাদা করার সুযোগ দেয়া হয়েছে। প্রতিটি সরকারই অবৈধ উপার্জনকারীদের পৃষ্ঠপোষকতা করে আসছে। দেশের সাধারণ মানুষ এ কারণে আইন ও নৈতিকতার প্রতি ক্রমাগত শ্রদ্ধা হারাচ্ছে, অন্যদিকে কর প্রদানে নিরুৎসাহিত হচ্ছে। অথচ এর ফলে প্রভাবশালী মহলের একাংশের অবৈধতাকে প্রশ্রয় দেয়া ছাড়া রাজস্ব আদায়সহ অন্যকোনো মাপকাঠিতে বাস্তবে রাষ্ট্র কোনো প্রকার উল্লেখযোগ্য সুবিধা অর্জন করে না। বরং এর মাধ্যমে অর্জন একটাই – দুর্নীতির প্রাতিষ্ঠানিককীরণ ও মূল্যবোধের অবক্ষয়।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।