দেশকে ভালোবাসলে নির্বাচন বন্ধ করুন: এমাজউদ্দিন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ও বিশিষ্ট রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দিন আহমেদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আগামী রবিবারের নির্বাচন বন্ধ করতে আহ্বান জানিয়েছেন । একই সঙ্গে সংবিধানের মধ্য থেকে রাষ্ট্রপতি অথবা স্পিকারকে নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকারের প্রধান করে নির্বাচন দেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে মাহমুদুর রহমান মুক্তি সংগ্রাম পরিষদ আয়োজিত এক নাগরিক সমাবেশে এমাজউদ্দিন এ আহ্বান জানান।

নির্বাচন নিয়ে ক্ষমতাসীনদের সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা বক্তব্য বিষয়ে তিনি বলেন, ‘সংবিধানের ১২৩ অনুচ্ছেদের ‘ক’ ধারা অনুযায়ী নির্বাচন না করে ‘খ’ ধারা অনুযায়ী ২৪ জানুয়ারির পর ৯০ দিনের মধ্য নির্বাচন করা সম্ভব। আর এটি করলে সংবিধানের ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে।’

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে ঢাবির সাবেক এই ভিসি বলেন, ‘আপনি পদত্যাগ করুন। রাষ্ট্রপতি অথবা স্পিকারকে নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকার প্রধান করে নির্বাচনের ব্যবস্থা করুন।’

তিনি বলেন, ‘সরকার এটি করলে প্রয়োজনে আমরা বিরোধীদলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে সেই নির্বাচনে অংশ নিতে অনুরোধ করব। এর মাধ্যমে সংবিধান সমুন্নত এবং গণতান্ত্রিক ধারা- দুটিই অব্যাহত রাখা সম্ভব হবে।’

এমাজউদ্দিন বলেন, ‘আপনারা সংবিধানের দোহাই দিয়ে বলছেন- নির্বাচন পেছানো যাবে না। কিন্তু সংবিধানের ধারাবাহিকতা বজায় রেখেই ১২৩ এর ‘খ’ ধারা অনুযায়ী নির্বাচন করা সম্ভব। ২৪ জানুয়ারির পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করলে সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে।’

তিনি প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘যদি দেশকে ভালোবাসেন, তাহলে ৫ তারিখের নির্বাচন বন্ধ করুন। সর্বদলীয় সরকার বদলে রাষ্ট্রপতি অথবা স্পিকারকে প্রধান করে আলোচনার মাধ্যমে নির্বাচন দিন। জাতিকে বাঁচান।’

এই রাষ্টবিজ্ঞানী আশঙ্কা ব্যক্ত করে বলেন, ‘৫ জানুয়ারি নির্বাচন হলে গেলে দেশের মানুষের হাতে পতাকা থাকবে, সার্বভৌমত্ব থাকবে কিন্তু অর্থনীতি বিপর্যস্ত হয়ে পড়বে। যে অগ্রগতি হচ্ছে, তা থেমে যাবে। আর এই সুযোগে হেনরি কিসিঞ্জারের মত মানুষেরা আমাদের ধিক্কার দিবে। তাই দেশের স্বার্থে এই ত্যাগ করা উচিত।’

তিনি বলেন, ‘আপনি (শেখ হাসিনা) শুধু ঢাকার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে রয়েছেন। দেশের বৃহত্তম অংশ আপনার আদেশ মানছে না। আমরা চাইনি স্বাধীন দেশে এই রকম বেইজ্জতিতে একজন প্রধানমন্ত্রী পড়ুক।’

নাগরিক সমাবেশ থেকে দৈনিক ‘আমার দেশ’ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের মুক্তি দাবি করা হয়।

সংগঠনের উপদেষ্টা মোয়াজ্জেম হোসেন নান্নু চৌধুরীর সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তব্য দেন- জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমেদ, স্বাধীনতা ফোরামের সভাপতি আবু নাছের মো. রহমতুল্লাহ প্রমুখ।

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।