বিতর্কিত নির্বাচন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে গ্রহণযোগ্যতা পায়নি: বিবিসি

বাংলাদেশে গত ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে হতাশা প্রকাশ করেছে আমেরিকা। সোমবার রাতে দেশটির পররাষ্ট্র দফতর থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ হতাশা প্রকাশ করা হয়েছে।

ওয়াশিংটন থেকে আমেরিকার পররাষ্ট্র দফতরের একজন মুখপাত্র মেরি হার্ফ যে বিবৃতি পাঠিয়েছেন, তাতে উল্লেখ করা হচ্ছে, ‘এই নির্বাচনের ফলাফল বাংলাদেশী জনগণের আকাঙ্ক্ষার বিশ্বাসযোগ্য প্রতিফলন নয়’।

দেশটি বাংলাদেশে অবিলম্বে একটি নতুন নির্বাচন অনুষ্ঠানের পথ খুঁজে বের করতে সরকারি ও বিরোধী দলকে কার্যকর সংলাপে বসবারও আহ্বান জানাচ্ছে।

এদিকে, এই নির্বাচনকে ঘিরে যে সহিংসতা ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে তাতে জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন দুঃখিত হয়েছেন বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন মহাসচিবের মুখপাত্র।

মহাসচিবের মুখপাত্রের বরাত দিয়ে জাতিসংঘের ওয়েবসাইটে যে বিবৃতিটি প্রকাশিত হয়েছে, তাতে শান্তিপূর্ণ ও অবাধ একটি পরিবেশে যাতে জনগণের আকাঙ্ক্ষার প্রতিফল ঘটানো যায় তার জন্য দ্রুত একটি ব্যবস্থা নেবার কথা উল্লেখ করা হচ্ছে এবং প্রধান দলগুলোর মধ্যে সংলাপ শুরুর জন্যও তাগিদ দেয়া হচ্ছে।

এর আগে বৃটেনের পররাষ্ট্র দফতর থেকে প্রকাশিত বিবৃতিতেও বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে তাদের উদ্বেগের বিষয়টি উঠে এসেছে।

ইতিবাচক ভারত
স্পষ্টতই বোঝা যাচ্ছে বিতর্কিত এই নির্বাচনটি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে গ্রহণযোগ্যতা পায়নি। তবে ভারতের বক্তব্যে দেখা যাচ্ছে অনেকটাই ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি।

বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে সোমবার দিল্লিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় যে বিবৃতি দিয়েছে, তাতে এই নির্বাচনকে একটি ‘সাংবিধানিক প্রয়োজনীয়তা’ হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে।

ভারত বলছে, এই নির্বাচন বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ সাংবিধানিক প্রক্রিয়ারই অংশ – এবং বাংলাদেশের মানুষ কীভাবে তাদের জনপ্রতিনিধিদের নির্বাচন করবেন, তা নির্ধারণ করার এক্তিয়ার পুরোপুরি তাদেরই।

হিংসা দিয়ে আদৌ এগোনো যাবে না এবং বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে নিজের গতিতে চলতে দিতে হবে বলেও ওই বিবৃতিতে মন্তব্য করা হয়েছে। সূত্র: বিবিসি

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।