দশম জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশন বসছে আজ সন্ধ্যায়

বাংলাদেশের সংসদীয় গণতন্ত্রের ইতিহাসে যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে ‘বিতর্কিত’ দশম জাতীয় সংসদ। বুধবার সন্ধ্যা ৬টায় দশম সংসদের প্রথম অধিবেশন শুরু হচ্ছে।

অধিবেশনের শুরুতে সংসদের নতুন স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকার নির্বাচন করা হবে। এ ছাড়া বছরের প্রথম অধিবেশন হিসেবে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সংসদে ভাষণ দেবেন।

স্পিকার হিসেবে বর্তমান স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীই থাকছেন। তিনি মঙ্গলবার রংপুরে প্রধানমন্ত্রীর ছেড়ে দেয়া আসন থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। আজ সংসদ সদস্য হিসেবে তার শপথ নেয়ার কথা রয়েছে।

প্রসঙ্গত, প্রধান বিরোধী দল বিএনপিসহ নিবন্ধিত ৪০টি দলের মধ্যে ২৮টির বর্জনের মধ্যে গত ৫ জানুয়ারি দশম সংসদ নির্বাচনের ভোট হয়।

সহিংসতা ও স্বল্প ভোটার উপস্থিতির এই নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায় আওয়ামী লীগ। অবশ্য ভোট ছাড়াই ক্ষমতাসীন জোটের ১৫৩ জন নির্বাচিত হয়েছিল। বাকি ১৪৭ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী ছিল অনেকটা প্রতীকী।

এই নির্বাচনে বিরোধী দল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে বিগত আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারের অন্যতম শরিক জাতীয় পার্টি। বর্তমান সরকারেও তাদের কয়েকজন মন্ত্রী রয়েছেন। পার্টি চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ হলে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত।

গ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের পর গত ৯ জানুয়ারি দশম সংসদের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যদের শপথ গ্রহণ এবং ১২ জানুয়ারি রবিবার মন্ত্রিসভা গঠন ও দপ্তর বণ্টন সম্পন্ন হয়। এর পরদিনই রাষ্ট্রপতি সংসদ অধিবেশন আহ্বান করেন।

নবম সংসদ ভেঙে দেয়ার ঘোষণা ছাড়াই নতুন সংসদ সদস্যের শপথ ও মন্ত্রিসভা গঠন করা হয়। এ নিয়ে বিতর্কের মধ্যেই রাষ্ট্রপতি দশম সংসদের অধিবেশন আহ্বান করেন। নবম সংসদের পুরো মেয়াদ পাঁচবছর পূর্ণ হয় গত ২৪ জানুযারি।

নবম সংসদের প্রধান বিরোধী দল বিএনপিসহ নিবন্ধিত তিন-চতুর্থাংশ দল তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে দলীয় সরকারের অধীনে অনুষ্ঠিত দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করে। বিরোধী দলের তীব্র আন্দোলনের মধ্যেই ৫ জানুয়ারি এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

নির্বাচনে ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে উপস্থিতি ছিল খুবই কম। বিরোধী দলের দাবি মাত্র ৫ শতাংশ ভোট পড়েছে। জাল ভোটের অভিযোগ সত্ত্বেও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের মতে, ২০ শতাংশের বেশি ভোট পড়েনি। তবে তিন দিন পর নির্বাচন কমিশন জানায়, ভোটার উপস্থিতি ছিল ৪০.৫৬ ভাগ। নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি ছিল ৮৭ ভাগ।

আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের শরিকরাই মূলতঃ এই নির্বাচনে অংশ নেয়। এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টিসহ মহাজোটের শরিকদের নিয়েই এই সংসদের মন্ত্রিসভা গঠিত হয়েছে। আবার জাতীয় পার্টিই সংসদের বিরোধী দলের ভূমিকা পালন করতে যাচ্ছে।

ইতোমধ্যেই জাতীয় পার্টির সিনিয়র প্রেসিডিয়াম সদস্য রওশন এরশাদকে বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে সংসদ সচিবালয় থেকে গেজেট প্রকাশ করা হয়েছে। সংসদে জাতীয় পার্টির ৩৩টি আসন রয়েছে।

এদিকে, দিনের কার্যসূচী অনুযায়ী আজ প্রথমেই স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকার নির্বাচন সম্পন্ন হবে। তারপর অধিবেশনে প্যানেল সভাপতির নাম ঘোষণা করা হবে। এরপরই জাতীয় ও আন্তর্জাতিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের মৃত্যুকে শোক প্রস্তাব গ্রহণ করা হবে।

তারপর রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বছরের প্রথম অধিবেশন হিসেবে সংসদে ভাষণ দেবেন। রাষ্ট্রপতির ভাষণ আগেই মন্ত্রিসভা অনুমোদন করেছে। সংসদের প্রদত্ত রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর ধন্যবাদ প্রস্তাব আনা হবে এবং এই প্রস্তাবের ওপর দীর্ঘ আলোচনার রেওয়াজ রয়েছে।

অধিবেশন শুরুর আগে বিকেলে সংসদের কার্যউপদেষ্টা কামটির বৈঠকে অধিবেশনের মেয়াদ ও কার্যসূচি নিয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।