২ লাখ ৫০ হাজার ৩০৩ কোটি টাকা বাজেট পেশ আজ

রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যেই দশম জাতীয় সংসদে বৃহস্পতিবার ২০১৪- ১৫ অর্থবছরের বাজেট পেশ করা হবে। এবারের বাজেটের আকার ২ লাখ ৫০ হাজার ৩০৩ কোটি টাকা দাঁড়াচ্ছে বলে অর্থমন্ত্রণালয় সূত্রে জানা  গেছে।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বৃপস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৩ টায় এ বাজেট উপস্থাপন করবেন। মূল বাজেট পেশের পর অর্থমন্ত্রী একই দিনে ২০১৩-১৪’ অর্থবছরের সম্পূরক বাজেটও পেশ করবেন।

এবারও অর্থমন্ত্রী প্রজেক্টরের মাধ্যমে বাজেট উপস্থাপন ও বক্তৃতা প্রদান করবেন। আর সংসদ সদস্যরা জাতীয় সংসদ থেকে পাওয়া ল্যাপটপের মাধ্যমে বাজেটের যাবতীয় তথ্য পাবেন। সংসদের কার্যউপদেষ্টা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৪৫ ঘণ্টা আলোচনার পর আগামী ২৯ জুন আগামী অর্থবছরের বাজেট পাস হবে। আর বাজেট অধিবেশন চলবে আগামী ৩ জুলাই পর্যন্ত।

এছাড়া, আগামী ৬ জুন শুক্রবার অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বাজেটোত্তর সংবাদ সম্মেলন করবেন। গত ৩ জুন সংসদের বাজেট অধিবেশন শুরু হয়। গত ১৮ মে রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আবদুল হামিদ সংবিধানের ৭২ অনুচ্ছেদের (১) দফায় দেয়া ক্ষমতা অনুযায়ী অধিবেশনের আহবান করেন।

ইতোমধ্যে বাজেটের সকল প্রস্তুতি শেষ করে এনেছে অর্থমন্ত্রণালয় ও সংসদ সচিবালয়। এমপিদের বাজেট বক্তৃতায় সহায়তার জন্য সংসদ ভবনের তৃতীয় তলায় বসানো হয়েছে বাজেট হেল্প ডেক্স।

প্রসঙ্গত, গত ৫ জানুয়ারির বিতর্কিত সংসদ নির্বাচনে দ্বিতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসার পর বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের এটি হবে প্রথম বাজেট এবং দেশের ৪৩তম বাজেট।

অর্থমন্ত্রী হিসেবে এএমএ মুহিতের এটি টানা ষষ্ঠ বাজেট। আওয়ামী লীগের গত মেয়াদে টানা পাঁচটি বাজেট পেশ করেছিলেন অর্থমন্ত্রী। সব মিলিয়ে তিনি অষ্টম বাজেট উপস্থাপন করবেন।

এদিকে, অর্থ মন্ত্রণালয়ের নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, শেষ পর্যন্ত ২০১৪-১৫ অর্থবছরের বাজেটের আকার দাঁড়াচ্ছে ২ লাখ ৫০ হাজার ৩০৩ কোটি টাকা। অর্থমন্ত্রী প্রস্তাবিত এই বাজেট ইতিমধ্যে অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভা। এডিপির আকার, রাজস্ব আয়, ব্যাংক ও বিদেশী ঋণের হিসাব ধরে এই বাজেট চূড়ান্ত হয়েছে।
বাজেটে সব মিলে আয় ধরা হয়েছে ১ লাখ ৮২ হাজার ৫৩০ কোটি টাকা। ব্যয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২ লাখ ৫০ হাজার ৩০৩ কোটি টাকা। ঘাটতি রাখা হয়েছে ৬৭ হাজার ৭৭৩ কোটি টাকা। এই ঘাটতি ব্যাংক ঋণ, বৈদেশিক ঋণ ও অনুদানের অর্থে মেটানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এদিকে, চলতি ২০১৩-১৪ অর্থবছরের মূল বাজেট ছিল ২ লাখ ২২ হাজার ৪৯১ কোটি টাকা। পরে সংশোধিত হয়ে এ বাজেটের আকার দাঁড়ায় ২ লাখ ১১ হাজার ২২০ কোটি টাকা।

এদিকে, আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারের গত মেয়াদের ৫টি বাজেট অধিবেশনের একটিতেও তৎকালীন বিরোধী দল বিএনপি উপস্থিত ছিল না। তবে ‘গৃহপালিত’ আখ্যায় পাওয়া বর্তমান বিরোধী দল জাতীয় পার্টি অধিবেশনের শুরু থেকেই সংসদে রয়েছে।
বিরোধী দল পুরো অধিবেশন জুড়ে সংসদে থাকবে জানিয়ে বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ তাজুল ইসলাম জানান, সংসদ কার্যকর করার অঙ্গীকার নিয়েই বিরোধী দলের আসনে বসেছে জাতীয় পার্টি। বিরোধী দলের পক্ষ থেকে বাজেটের চুলচেরা বিশ্লেষণ করা হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।