শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে, আগমীকাল পবিত্র ঈদুল ফিতর

পবিত্র শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে। আগামীকাল মঙ্গলবার পবিত্র ঈদুল ফিতর উদ্‌যাপিত হবে। আরটিএনএন পরিবারের পক্ষ থেকে সবাইকে ঈদ মোবারক

 

সোমবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বাইতুল মোকাররমের সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির বৈঠক থেকে এ সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

 

সোমবার বিকেল থেকেই অগণিত দৃষ্টি আকাশে খুঁজেছে এক ফালি বাঁকা চাঁদ। পবিত্র রমজানের সিয়াম সাধনার পর অবশেষে দেখা গেছে ঈদের সেই কাঙ্ক্ষিত চাঁদ। দেশবাসী মেতেছে ঈদের আনন্দে।

 

চাঁদ দেখা যাওয়ার ঘোষণার সরকারি ঘোষণার পাশাপাশি টিভি-বেতারে বাজতে শুরু করেছে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের কালজয়ী সেই গান- ‘ও মন রমজানের ওই রোজার শেষে এল খুশির ঈদ…’। সর্বত্র পরস্পরকে লক্ষ্য করে ভেসে আসছে ‘ঈদ মোবারক’ ধ্বনি।

 

প্রসঙ্গত, মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের শতাধিক দেশে সোমবার পবিত্র ঈদুল ফিতর উদ্‌যাপিত হয়েছে। তবে চাঁদ দেখার ওপর নির্ভর করে বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তানসহ এশিয়ার দেশগুলোতে সাধারণত পরদিনই ঈদ হয়ে থাকে।

 
ঈদের দিনটি ধনী-গরিব, আশরাফ-আতরাফ নির্বিশেষে সবাইকে এক কাতারে দাঁড় করায়। এদিক থেকে ঈদ কেবল আনন্দের বার্তাই নিয়েই আসে না, উদ্ভাসিত হয় ইসলামের সুমহান সাম্যের এক বড় পরিচয়।

 
চাঁদ দেখার সঙ্গে সঙ্গেই ঘরে ঘরে শুরু হয়েছে সাধ্যমতো উপাদেয় খাবার আয়োজনের তোড়জোড়। ‘সেমাইয়ের ঈদ’ নামে প্রচলিত এই ঈদে নানা রকম সেমাইয়ের সঙ্গে থাকছে ফিরনি, পিঠা, পায়েস, পোলাও, কোরমাসহ সুস্বাদু খাবারের আয়োজন।

 
বিশেষ আয়োজন থেকে বাদ যাবেন না রোগী, বন্দী বা বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত কর্মীরাও। হাসপাতাল, এতিমখানা ও বন্দীদের জন্য কারাগারগুলোতে উন্নতমানের খাবারের ব্যবস্থা থাকবে প্রথাগতভাবে। সরকারি শিশু সদন, ছোটমণি নিবাস, সামাজিক প্রতিবন্ধী কেন্দ্র, আশ্রয়কেন্দ্র, বৃদ্ধাশ্রম, ভবঘুরে কল্যাণকেন্দ্র ও দুস্থ কল্যাণকেন্দ্রেও থাকবে বিশেষ খাবার ও বিনোদনের ব্যবস্থা।

 
ঈদ উপলক্ষে দৈনিক পত্রিকাগুলো ইতিমধ্যে প্রকাশ করেছে বিশেষ ক্রোড়পত্র। আর এই আনন্দকে বাড়িয়ে দিতে আছে বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলের ঈদের বিশেষ অনুষ্ঠানমালা।

 
তবে মুসলমানদের অন্যতম এই ধর্মীয় উৎসবে বিষাদের কালো ছায়া ফেলেছে বর্বর ইসরাইলি বাহিনী। ফিলিস্তিনের গাজায় ঈদের দিনেও হামলা চালিয়ে শিশুসহ চার ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে বর্ণবাদী ইহুদী সেনাবাহিনী।

 
এদিকে, পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে পৃথক বাণীতে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এসব বাণীতে তারা শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি দেশবাসীর মঙ্গল কামনা করেছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।