কারখানায় বিস্ফোরণের পর আগুনের ঘটনায় গাফিলতিতে শাস্তি: শিল্পমন্ত্রী

টঙ্গীর কারখানায় বিস্ফোরণের পর আগুনের ঘটনায় যাদের গাফিলতি থাকবে, তারা শাস্তি পাবে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু । রোববার সকালে গাজীপুরের টঙ্গীতে বয়লার বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্ত কারখানা পরিদর্শন করে সাংবাদিকদের একথা বলেন তিনি।

আমু বলেন, কারখানায় হতাহতের ঘটনায় তারা সবাই মর্মাহত, শোকাহত। রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীসহ সবাই এই ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন। নিহত ব্যক্তিদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান শিল্পমন্ত্রী।

এ সময় শিল্প মন্ত্রণালয়ের বয়লার পরিদর্শক বয়লার বিস্ফোরণে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেনি বলে জানান।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, কারখানাটির আগুন পুরোপুরি বন্ধ হওয়ার পর ফায়ার সার্ভিস ধ্বংসস্তূপ সরানোর কাজ করবে।

এদিকে, গাজীপুরের টঙ্গীতে ফয়েল কারখানার লাগা আগুনে দগ্ধ আরো একজন সকালে ঢাকা মেডিকেলে মারা গেছেন। এ নিয়ে নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৫ জনে। এ ঘটনায় আহত অর্ধশতাধিক বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

এদিকে, ফায়ার সার্ভিসের ২৬ ইউনিটের চেষ্টায় ২৪ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে এসেছে আগুন। সকাল ৭টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

শনিবার ভোরে আগুন লাগার পর পরই আহতদের প্রথমেই নেয়া হয় টঙ্গী হাসপাতালে। পরে টঙ্গী হাসপাতালে বার্ন ইউনিট না থাকায় গুরুতর দগ্ধদের নেয়া হয় ঢাকা মেডিকেলে।

আগুনে ধসে পড়েছে ৪ তলা ভবন। পরে পাশের আরেকটি ৫লা ভবনেও আগুন ছড়িয়ে পড়ে। কারখানার ভিতরে সকাল থেকে উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে ফায়ার সার্ভিস।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।