‘কোটা পদ্ধতি সংস্কার কখনই পিএসসির নয়’ : মোহাম্মদ সাদিক

পিএসসির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাদিক বলেছেন কোটাপদ্ধতি সংস্কারের বিষয়টি কখনই পিএসসির হাতে না  । ৩৮তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অক্টোবরের মধ্যে হবে বলেও জানান তিনি।

বুধবার একটি জাতীয় দৈনিককে এ কথা বলেন পিএসসির চেয়ারম্যান।

পিএসসির চেয়ারম্যান বলেন, “কোটাপদ্ধতি সংস্কারের বিষয়টি কখনই পিএসসির না। সম্পূর্ণ সরকারের বিষয় এবং এটি সংবিধানের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে এটা করা হয়। আমরা কোটানীতিকে শুধু অনুসরণ করি।”

 

মোহাম্মদ সাদিকবলেন, “বিসিএস পরীক্ষার ফলাফল দ্রুত শেষ করতে কাজ করছে পিএসসি। এর জন্য রোডম্যাপ তৈরি করা হয়েছে। এ ছাড়া বিভিন্ন বিষয়ে গতি আনতেও কাজ করছে সংস্থাটি।”

মোহাম্মদ সাদিক আরো বলেন, “বিসিএস পরীক্ষার একটি কাঠামো আছে। আমি চাইলে এটি বদলাতে পারব না। এখন আমরা একসঙ্গে তিন-চারটি পরীক্ষা নিয়ে কাজ করছি। ৩৫তম বিসিএসের নন ক্যাডারদের রেজাল্ট দিচ্ছি। ৩৬তম-এর ফলাফল তৈরি করছি। ৩৭তম-এর মৌখিকের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি, ৩৮তম-এর আবেদন ফরম গ্রহণ করছি। চারটি পরীক্ষা যদি চার বছরের মধ্যে শেষ করি, তাও এক বছর সময় লাগছে। একটা বিসিএস পরীক্ষা মানে শুধু একটা পরীক্ষা নয়। ২৭টি ক্যাডারের পরীক্ষা।”

তিনি আরো বলেন, “বিসিএসে কীভাবে আরো সংস্কার আনা যায়, সে জন্য আমাদের একটি কমিটি কাজ করছে। সে কমিটিতে একাধিক কমিশন সদস্য আছেন, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক, ক্যাডার এবং নন ক্যাডার কর্মকর্তারা আছেন। এর সুপারিশ চূড়ান্ত পর্যায়ে আছে। এখনো সেই সুপারিশ কমিশন সভায় নিয়ে আসতে পারিনি। সেগুলো এনে সুপারিশগুলো গ্রহণ করা হবে। পরীক্ষার নম্বর বাড়বে না কমবে—এটা আগে থেকে বলা যাবে না।”