সরকার সুষ্ঠু নির্বাচন করতে বদ্ধপরিকর : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

সরকার সুষ্ঠু নির্বাচন করতে বদ্ধপরিকর : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী



অনলাইন ডেস্ক, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, শেখ হাসিনার সরকার সুষ্ঠু নির্বাচন করতে বদ্ধপরিকর। কিন্তু অত্যন্ত দুর্ভাগ্যের বিষয়; স্বাধীনতা বিরোধীরা ও বঙ্গবন্ধুকে হত্যার সাথে যে শক্তিগুলো জড়িত ছিল তারা সবসময় গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে বাধাগ্রস্ত ও নির্বাচনকে বিতর্কিত করতে চেষ্টা করেছে। স্বাধীনতা বিরোধীরা যত চেষ্টাই করুক না কেন— সরকার নির্বাচনকে সুষ্ঠু করতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করে যাবে।

বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

ঢাকা সিটি নির্বাচন নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মো. তাজুল ইসলাম বলেন, জয়ের ব্যাপারে আওয়ামী লীগ শতভাগ আশাবাদী। কারণ, আওয়ামী লীগ যে ২ জন মেয়রপ্রার্থীকে মনোনয়ন দিয়েছে তারা সর্বাধিক উত্তম প্রার্থী। ঢাকাকে উন্নত নগরীতে রূপান্তর করার জন্য যোগ্যতার মাপকাঠিতে আতিকুল ইসলাম ও শেখ তাপস শীর্ষে অবস্থান করছেন। ঢাকা উত্তর সিটি আগে আবর্জনার নগরী ছিল, কিন্তু জননেত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তে আনিসুল হক ও তার পরবর্তীতে আতিকুল ইসলামের চেষ্টায় আবর্জনা অনেকটা দূরীভূত হয়েছে। শেখ তাপস একজন সফল সাংসদ হিসেবে ঢাকা দক্ষিণ সিটি নির্বাচনে মানুষের ব্যাপক প্রশংসা ও সমর্থন অর্জন করেছে। তাই জয়ের ব্যাপারে আওয়ামী লীগ শতভাগ আশাবাদী।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী আরও বলেন, লেভেল প্লেয়িংফিল্ড একটি আপেক্ষিক শব্দ। বিএনপি লেভেল প্লেয়িংফিল্ডের কথা বলে, কিন্তু তারা তো তত্ত্বাবধায়ক সরকারকে বিতর্কিত করার জন্য বিচারপতিদের বয়স বাড়িয়ে দিয়েছিল। বিএনপির এক সময়ের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক কে. এম হাসানকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বানানোর জন্য চেষ্টা করেছে এবং বেগম জিয়ার নির্দেশ অনুযায়ী তৎকালীন সময়ে উপদেষ্টামণ্ডলী গঠিত হয়েছিল যার বিরুদ্ধে গোটা জাতি অবস্থান নিয়েছিল। এছাড়া বিএনপির প্রার্থীরা মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে ভোট চাচ্ছে, মাঠে ময়দানে কাজ করছে। যদি লেভেল প্লেয়িংফিল্ড না থাকতো তাহলে তারা এই কাজগুলো কিভাবে করছে। তাই লেভেল প্লেয়িংফিল্ডের কথা তাদের মুখে মানায় না।

সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, বিএনপির জন্ম হয়েছে অগণতান্ত্রিকভাবে। বিএনপির সেনা শাসক জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধু হত্যার সাথে জড়িত ছিলেন। পরবর্তীতে তার সুবিধা হিসেবে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা পেয়েছেন। জিয়াউর রহমান তৎকালীন সময়ে যে দলটা করেছেন তখনই সন্ত্রাসী, দুর্নীতিবাজ, দেশদ্রোহী লোকদের নিয়ে করেছিল। বিএনপি একটি সন্ত্রাসী দল হিসেবে পরিচিত। তাদের সন্ত্রাসীরা যদি ঢাকা সিটি নির্বাচনে ব্যাঘাত ঘটানোর চেষ্টা করে, তাহলে সেই চেষ্টাকে ব্যর্থ করে দেওয়ার সক্ষমতা শেখ হাসিনার রয়েছে। 

এরপর স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী জাতির পিতার স্মৃতি বিজড়িত মধুমতি নদীর পাশে নির্মিত ঘাট পরিদর্শন করেন।

এসময় এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলী সুশংকর চন্দ্র আচার্য, গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলী খান, গোপালগঞ্জ পৌর মেয়র লিয়াকত আলী লিকু, গোপালগঞ্জ এলজিইডি,র প্রধান প্রকৌশলী এ কে ফজলুল হক, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান সোলায়মান বিশ্বাস,  ইউএনও নাকিব হাসান তরফদার, উপজেলা প্রকৌশলী হাসান ইবনে মিজান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


এ সম্পর্কিত আরো খবর

জাতীয় এর অন্যান্য খবরসমূহ
রাজনীতি এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ