সৌদি আরবে করোনায় মারা যাওয়া ৩০ শতাংশই বাংলাদেশি

করোনাভাইরাসে সৌদি আরবে এ পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে এক হাজার ৯১ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৩৯ জন। সুস্থ হয়েছে ৮৭ হাজারেরও বেশি এবং আক্রান্তের সংখ্যা এক লাখ ৪১ হাজার ২৩৪ জন। প্রানঘাতী এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সৌদি আরবে ১৫ জুন পর্যন্ত ৩৫৩ বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে।


এ পরিসংখ্যান অনুযায়ী দেশটিতে কোভিড-১৯ রোগে মারা যাওয়া মানুষের ৩০ শতাংশেরও বেশি বাংলাদেশি।


রিয়াদে বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রেস উইংয়ের প্রথম সচিব ফখরুল ইসলাম বাংলাদেশিদের এ মৃত্যুর সংখ্যা নিশ্চিত করেছেন।


তিনি জানান, রিয়াদে দূতাবাসের আওতাধীন এলাকায় ১৫২ বাংলাদেশি কোভিড-১৯ রোগী মারা গেছেন।


জেদ্দায় বাংলাদেশ কনস্যুলেটের শ্রমকল্যাণ কাউন্সিলর আমিনুল ইসলাম জানান, কনস্যুলেটের আওতাধীন এলাকায় করোনায় ২০১ বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে।


এ ছাড়া প্রতিদিনই নানা রোগ ও স্বাভাবিকভাবে মারা যাচ্ছেন অনেক প্রবাসী। আন্তর্জাতিক রুটের বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় হাসপাতালের হিমাগারগুলো মরদেহে পরিপূর্ণ হওয়ায় ৭২ ঘণ্টার মধ্যে দাফন সম্পন্ন করছে কর্তৃপক্ষ।


করোনায় সৌদি আরবে মোট মৃত্যু হয়েছে এক হাজার ১১ জনের। সুস্থ হয়েছে ৮৭ হাজার ৮৯০ এবং আক্রান্তের সংখ্যা এক লাখ ৩২ হাজার ৪৮ জন।


এ দিকে সৌদি আরবের রিয়াদে বাংলাদেশ দূতাবাস পরিচালিত নারী গৃহকর্মী আশ্রয়কেন্দ্রের কেয়ারটেকার কাম ড্রাইভার শিকদার মোহাম্মদ সাঈদ করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন।


গত ১৩ জুন ভোরে তার মৃত্যু হয়। সেফহোমে প্রায় দেড় শতাধিক নারী গৃহকর্মী দেশে ফেরার অপেক্ষায় রযেছেন।


কেয়ারটেকারের করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হওয়ায় সেখানে থাকা নারীদের করোনা শনাক্তের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে দূতাবাস কর্তৃপক্ষ।