কাউখালী কাজী হারুনুর রশিদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় স্বাভাবিক জোয়ারে পানিতে প্লাবিত

কাউখালী প্রতিনিধি: পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার কাজী হারুনুর রশিদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি রবিবার দেখা গেছে স্বাভাবিক জোয়ারে পানিতে প্লাবিত হয়েছে। এবছর সাম্প্রতিক ঘন বর্ষণেও পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বিদ্যালয়ের সম্মুখভাগ সম্পূর্ন তলিয়ে গিয়েছিল।

 

বরিবার দ্বিতীয় সাময়িক পরীক্ষা চলমান থাকায় প্রথমার্ধের পরীক্ষা শেষে শিক্ষার্থীদের বাড়ী ফিরতে হাটুজল ভাংতে হয়েছে। গতকালের চিত্রও প্রায় একইরকম ছিল। বন্দরের উপর এই প্রাথমিক বিদ্যালয়টি প্রতি বর্ষা মৌসুমে জোয়ারে প্লাবিত হয়ে থাকে। ফলে ৫ থেকে ১০ বছর বয়সী ছোট ছোট শিক্ষার্থীদের ছোট খাটো দুর্ঘটনাতো প্রায়ই ঘটে থাকে। তবে মারাত্মক কোন দুর্ঘটনা ঘটা সময়ের ব্যবধান মাত্র।

 

অনেক সময় দেখা গেছে সকালের জোয়ারে পানিতে প্লাবিত হওয়ায় বিদ্যালয়ের প্রবেশ পথ বন্ধ হয়ে গেছে। শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে প্রবেশ করতে না পেরে বাড়ী ফিরে গেছে। গত অর্থ বছরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী সম্মুখভাগ ভরাটের জন্য ১ মেঃটন টিআর বরাদ্দ করা হয়েছিল। তা দিয়ে কিয়দাংশ বালু দিয়ে ভরাট করা হলেও তা ছিল প্রয়োজনের তুলনায় নিতান্ত অপ্রতুল। মাঠটি সম্পূর্ণ ভরাট করা না গেলে এ সমস্যার স্থায়ী সমাধান হবেনা। অন্যদিকে জমিটা কিছুটা নীচু জমি হওয়ায় নতুন অবকাঠামো নির্মান করা হলে তার ভিটি উচু করে নির্মাণ করতে হবে।

 

এ বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসার খোন্দকার জসিম আহামেদ বলেন, বিষয়টি আমাদের নলেজে আছে। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে আমরা লিখব। উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম আহসান কবির জানান, গত অর্থ বছরে ১ মেঃটন টিআর দেওয়া হয়েছে। বর্তমান বছরে আমরা বেশী বরাদ্দ দেওয়ার চেষ্টা করব। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বীথিকা সাহা বলেন, উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদেরকে বিষয়টি বহুবার জ্ঞাত করানো হয়েছে। তারা হয়ত তাদের সাধ্যমত চেষ্টা করছেন তবে তিনি বন্দরের উপর প্রশাসনের চোখের সামনে এই বিদ্যালয়টির উন্নয়নে স্থানীয় সংসদ সদস্য তথা মাননীয় পানি সম্পদ মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন ।