উনি চেহারা পাল্টে দেশকে পেছনে নিয়ে যাবে:প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা, ২২ নভেম্বর (খবর তরঙ্গ ডটকম)- বিএনপি আবার ক্ষমতায় এলে দেশের চেহারা পাল্টে দেয়ার নামে বর্তমান সরকারের সব উন্নয়ন কাজ বন্ধ করে দেয়া হবে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভনেত্রী শেখ হাসিনা।বৃহস্পতিবার গণভবনে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল পর্যায়ের নেতা কর্মীদের সাথে মতবিনিময় কালে তিনি এসব মন্তব্য করেন।প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপির দুর্নীতি, লুটপাটের জবাব ২০০৮ সালের নির্বাচনে জনগণ দিয়েছে। ভবিষ্যতে আবারো দেবে।বৈঠকে বক্তৃতাকালে সম্প্রতি বরিশালের জনসমাবেশে বিরোধী দলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়া ভবিষ্যতে ক্ষমতায় গেলে দেশের চেহারা পাল্টে দেয়ার যে অঙ্গীকার করেন সে ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী তার জবাব দেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘চেহারা পাল্টে দেয়া বলতে তিনি কী বুঝিয়েছেন আমি জানিনা। চেহারা পাল্টে দেয়ার মানে হলো, আবার গ্রেনেড হামলা, বোমা হামলা, সন্ত্রাস এগুলোকে তিনি আবার ফিরিয়ে আনবেন। আবার গ্রেনেড হামলা হবে, আবার বোমা হামলা হবে, আবার সন্ত্রাস হবে, আবার মানুষ হত্যা হবে। তার মানে উনি সারা বাংলাদেশে আবার সেগুলো ফিরিয়ে আনবেন। কারণ চেহারাটা পাল্টেই দেবেন বলেছেন।’

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ আজকে সারা বিশ্বে অর্থনীতির ক্ষেত্রে শীর্ষ পাঁচ-এর মধ্যে প্রায়  পঞ্চম স্থান অধিকার করে আছে। উনি ক্ষমতায় এলে এ অবস্থা পাল্টে দিয়ে আবার দেশকে পেছনের দিকে নিয়ে যাবেন। যাতে আর কোন অর্থনৈতিক উন্নতি না হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ পাঁচবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। আল্লাহর রহমতে এখন আর দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন নেই। উনি ক্ষমতায় এসে বাংলাদেশকে আবার চেহারা পাল্টে দিয়ে দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন করে দেবেন।

তিনি আরো বলেন, সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ আমরা বন্ধ করেছি, উনি ক্ষমতায় আসলে বাংলাদেশের চেহারা পাল্টে দিয়ে আবার বাংলাদেশকে সন্ত্রাসী দেশ, জঙ্গিবাদের দেশে পরিণত কবেন। আজকে যে যুদ্ধাপরাধের বিচার হচ্ছে। তারা ক্ষমতায় থাকাকালে তাদেরকে পুরস্কৃত করেছিল, তাদেরকে পতাকা দিয়েছিল।

বিএনপি ক্ষমতায় এলে যুদ্ধাপরাধীদের আবার পতাকা দিয়ে পুনর্বাসিত করা হবে বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী।

দলের তৃণমূল নেতাদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগের অংশ হিসাবে সিলেটের নেতাদের সাথে এ বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী।

বৈঠকে সিলেটের মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, সিটি কর্পোরেশনের মেয়র থেকে শুরু করে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা অংশগ্রহণ করেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।