জামায়াতের সঙ্গ না ছাড়লে বিএনপি’র কঠোর বিচার করা হবে:প্রধানমন্ত্রী

মৌলভীবাজার,০১ডিসেম্বর (খবর তরঙ্গ ডটকম)-জনগণের মনের কথা বুঝে বিএনপিকে মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধ দল জামায়াতে ইসলামীর সঙ্গ ছাড়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অন্যথায় যুদ্ধাপরাধীদের পাশাপাশি তাদের দুর্নীতির কঠোর বিচার করা হবে বলেও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।শনিবার মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আওয়ামী লীগের জনসভায় এ আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগকে আবার ক্ষমতায় আনার জন্য সবাইকে নৌকায় ভোট দিতে বলেন।তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে দেশের মানুষ শান্তিতে থাকে। সরকার দেশের উন্নতিতে কাজ করে যাচ্ছে, তাই সন্ত্রাস ও দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগকে আবারো ক্ষমতায় আনা প্রয়োজন।

জনসভায় বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘জনগণের মনের কথা বোঝার চেষ্টা করুন। জামায়াত-শিবির ছাড়ুন। তাহলে যদি আপনাদের বাংলার মানুষের মনে একটু জায়গা হতে পারে।’

‘যতই চেষ্টা করেন, যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে পারবেন না।’- যোগ করেন তিনি।

শেখ হাসিনা আরো বলেন, ‘গলাবাজি করে খালেদা জিয়া নিজের দুর্নীতি ঢাকতে চাচ্ছেন। ভাল কিছু করে নয়, দুর্নীতি, দুঃশাসনের মাধ্যমে দেশের চেহারা পাল্টে দিবেন খালেদা জিয়া।’

এক দিনের সফরে মৌলভীবাজারে গিয়ে বেশ কয়েকটি প্রকল্প উদ্বোধন এবং ভিত্তিস্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী।

ডিসেম্বর মাসে সড়ক অবরোধের কর্মসূচি (আগামী ৮ ডিসেম্বর ) দেয়ায় বিরোধী দলের কড়া সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিরোধীদলীয় নেতা বিজয়ের মাসে যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষায় কর্মসূচি দিয়েছেন।

জনসভায় সিলেটের উন্নয়নে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়ার কথা তুলে ধরে চারদলীয় জোট সরকার সেই ধারাবাহিকতা রক্ষা না করায় তাদের সমালোচনা করেন শেখ হাসিনা। বলেন, ‘আওয়ামী লীগ দেশের জনগণ এবং প্রবাসী বাংলাদেশিদের সাথে আছে।’

জনসভার আগে মৌলভীবাজার চিফ জুড়িশিয়াল ভবন, জাতীয় মহিলা সংস্থা ভবন, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়নাধীন টেকনিক্যাল ট্রেনিং সেন্টার ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ভবনের ভিত্তিস্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী মৌলভীবাজারে নবনির্মিত পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট এবং ২৫০ শয্যার হাসপাতালও উদ্বোধন করেন। এছাড়া শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ৫০ শয্যার হাসপাতাল এবং উপাধ্যক্ষ মো. আব্দুস শহীদ কলেজের ও শ্রীমঙ্গল ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্সের ভিত্তিস্থাপন করেন তিনি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।