জামায়াতের হরতালে ‘নৈতিক’ সমর্থন দিয়েছে বিএনপি - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

জামায়াতের হরতালে ‘নৈতিক’ সমর্থন দিয়েছে বিএনপি



(খবর তরঙ্গ ডটকম)

ঢাকা, ০৩ ডিসেম্বর (খবর তরঙ্গ ডটকম)- যুদ্ধাপরাধে অভিযুক্ত শীর্ষ নেতাদের মুক্তির দাবিতে সমাবেশ করতে না দেয়ায় জামায়াত ইসলামীর ডাকা মঙ্গলবারের হরতালে ‘নৈতিক’ সমর্থন দিয়েছে বিএনপি। দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সোমবার রাতে সাংবাদিকদের এই কথা জানান। তিনি বলেন নিবন্ধিত দল হিসেবে জামায়াত জামায়াতে সকল ধরনের গণতান্ত্রিক কর্মসূচি দেওয়ার অধিকার আছে। তাদের কে গণতান্ত্রিক কর্মসূচীতে সরকার বাধা দেওয়া অন্যায়।
সোমবার সমাবেশে পুলিশ অনুমতি না দেয়ায় দুপুরে মঙ্গলবার সারা দেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দেন জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমান।

বিবৃতিতে শফিকুর রহমান বলেন, ‘আওয়ামী লীগের দুঃশাসনে দেশ ধ্বংসের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। জনগণকে দেয়া প্রতিশ্রুত পালন না করে ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে পুনরায় ক্ষমতায় আসার পায়তারা করছে।’

তিনি অভিযোগ করেন, সরকারের অগণতান্ত্রিক কর্মকাণ্ড এবং সীমাহীন ব্যর্থতার বিরুদ্ধে যাতে বিরোধী দল কার্যকর আন্দোলন গড়ে তুলতে না পারে সেজন্য দমননীতি চালানো হচ্ছে।’

নিবন্ধিত দল হিসেবে জামায়াত আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল দাবি করে তিনি আরো বলেন, ‘সরকারের মেয়াদকালে জামায়াতকে কোন গণতান্ত্রিক কর্মসূচি পালন করতে দেয়া হচ্ছে না। শীর্ষ নেতাসহ হাজার হাজার নেতা-কর্মীকে মিথ্যা মামলা দিয়ে আটক রাখা হয়েছে। রিমান্ডের নামে নির্যাতন করা হচ্ছে।’

যুদ্ধাপরাধের বিচারকে প্রহসন আখ্যা দিয়ে শফিকুর রহমান বলেন, ‘আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়েই তারা আজ সোমবার ঢাকাসহ সারা দেশে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেয় এবং তা পালনের অনুমতি পেতে গত ২৯ নভেম্বর সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করে।’

তিনি জানান, দুর্ভাগ্যজনক সমাবেশের অনুমতি দেয়া হয়নি। উল্টো স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহিউদ্দীন খান আলমগীর এ নিয়ে মিথ্যাচার করেছেন।

ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল বলেন, আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না। তারা বাকশাল কায়েম করতে চায়। এজন্য নিয়মতান্ত্রিক কর্মসূচি করতে দিচ্ছে না।

আর এজন্য একান্ত বাধ্য হয়ে দলের শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও মুক্তি, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন, নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি রোধ, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতির প্রতিবাদে আগামীকাল মঙ্গলবার দেশব্যাপী সকাল-সন্ধ্যা হরতাল কর্মসূচি দিতে জামায়াতে ইসলামী বাধ্য হয়েছেন বলেও দাবি করেন ডা. শফিকুর রহমান।

একাত্তরে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে জামায়াতে ইসলামীর সাবেক ও বর্তমান আমীরসহ শীর্ষ আট নেতার বিচার চলছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে। এর মধ্যে কয়েকটি মামলার শুনানি শেষ পর্যায়ে রয়েছে।


রাজনীতি এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ