হ্যাকার গ্রুপের কবলে ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

হ্যাকার গ্রুপের কবলে ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট



(খবর তরঙ্গ ডটকম)

ঢাকা, ১১ ডিসেম্বর(খবর তরঙ্গ ডটকম)-ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ছাত্রসংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট (www.bsl.org.bd) হ্যাক করেছে হ্যাকার গ্রুপ।মঙ্গলবার দুপুর ৩টার দিকে এটি দৃষ্টিগোচর হয়। ওয়েবসাইটটি লগ-ইন তাতে কালো ব্যাকগ্রাউন্ডে লাল বর্ণে ক্ষমতাসীন এই ছাত্রসংগঠনটির প্রতি ধিক্কারমূলক বিভিন্ন বাক্য লেখা রয়েছে।হ্যাকাররা গত রোববার বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলের রাজপথ অবরোধ চলাকালে রাজধানী ঢাকার শাঁখারিবাজারে ছাত্রলীগের হামলায় পথচারী যুবক বিশ্বজিৎ দাসের মৃত্যুর ঘটনার প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।

সাথে গণমাধ্যমে প্রকাশিত বিশ্বজিৎ ও তার ওপর হামলাকারীদের বিভৎস সব ছবি ছবি দেওয়া রয়েছে।

ধারণা করা হচ্ছে, হ্যাকার গ্রুপটি বিশ্বজিৎ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে এটি হ্যাক করেছে। তারা রাষ্ট্রের হয়ে বিশ্বজিতের বিদেহী আত্মার কাছে ক্ষমা চেয়েছে।

প্রতিবাদী কয়েকটি বাক্য পড়ার কিছুক্ষণ পরেই বেজে উঠছে রক গান…
সারা শরীর তার ঘামে ভেজা সাঝে সে ফেরে ঘরে,
ঋণী তুমি, আমি, আমরা শীত ও তাপ ঘরে,
শূন্য গোলা তার ফলেনি ফসল তবু মুক্ত হাসি ঝরে,
যান্ত্রিক যাতাকলে পিষ্ট তুমি-আমি হাসি না ভয়ে।

ওয়েবসাইটে হ্যাকারদের ভাষা হুবহু তুলে ধরা হলো-
এরা কারা??

…এরা বাংলাদেশ ছাত্রলীগ…

…এরা খুনি, এদের বিচার চাই…বিশ্বজিতের হত্যাকারীদের বিচার চাই…

…নিহত বিশ্বজিতের আত্মার শান্তি কামনা করি…

আমাদের ক্ষমা কর বিশ্বজিত দাদা!! তোমাকে রক্ষা করতে ব্যর্থ এ রাষ্ট্র! ধিক এমন সব বর্বরতা সূচনাকারীদের!!

বিশ্বজিতের আত্মার কাছে আমরা পুরো দেশবাসী ক্ষমা চাইছি। জীবনের নিরাপত্তা, একজন পথচারী হয়ে বেঁচে থাকার অধিকারটা একটা মৌলিক অধিকার। কোনো রাজনৈতিক দল বা তার ছাত্রসংগঠন পারে না সেই অধিকার কেড়ে নিতে… এদের বিচার চাই…

কারা এরা?- শিরোনামের পরেই দৈনিক কালের কণ্ঠে প্রকাশিত হামলার ঘটনার ছবি।

এরপরেই লেখা-

এরা অজ্ঞাত, এদের পরিচয় পাওয়া যায়নি (?)-

এরপরেই লেখা- এবার কি জবাব দেবেন মাননীয় সরকার প্রধান? কি জবাব দেবেন বিরোধী দল? আপনাদের গৃহযুদ্ধের শিকার হলো বিশ্বজিত। ক্ষোভে ফুঁসছে সচেতন মহল- দেশ-প্রবাসের বাংলাদেশী! মানবিক বিবেক! এই কি স্বাধীনতা অর্জনের বহিঃপ্রকাশ? এই কি ছাত্র রাজনীতির আদর্শ? কোথায় ছুটছে স্বদেশ আমাদের? কার কাছে রয়েছে দেশপ্রেমের সুরক্ষা?

জবাব দিন, চুপ করে থাকবেন না

যদি কেউ এই বিশ্বজিতের খুনি না হয়ে থাকে তবে এই দেশের জনগণ বিশ্বজিতের খুনি… আমি বিশ্বজিতের খুনি… আমরা বিশ্বজিতের খুনি… এই দেশ বিশ্বজিতের খুনি…

খোজ নিয়ে জানা গেছে, ওয়েবসাইটটিতে যে রক গান বাজছে, গানটির অ্যালবামের নাম রাজত্ব। গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন- তাওফিক ও ফয়সাল রদ্দি। কথা ও সুর তাদের-ই করা।

তবে কারা এই হ্যাকের সাথে জড়িত বা কোন হ্যাকার গ্রুপ এটি করেছে- তা জানা যায়নি।

পাঠকদের সুবিধার্থে পুরো গানটির কথা দিয়ে দেওয়া হলো-
সারা শরীর তার ঘামে ভেজা সাঝে সে ফেরে ঘরে,
ঋণী তুমি, আমি, আমরা শীত ও তাপ ঘরে,
শূন্য গোলা তার ফলেনি ফসল তবু মুক্ত হাসি ঝরে,
যান্ত্রিক যাতাকলে পিষ্ট তুমি-আমি হাসি না ভয়ে।

তবু জীবনের ঈশারায় শুধু নেচে যাই-হাসিহীন জীবনে আধারে হারাই,
তোমার আমার অদৃশ্য দেয়াল শ্রেণীহীন সমাজের গান গেয়ে যাই।
ঘর্মাক্ত শরীর, মাথা ভরা বোঝা, পরাজিত জীবনে ভোগ করে সে সাজা
সপ্নহীন, বর্ণহীন, জীবন তার ছন্দহীন, ঠিকানাবিহীন হাহাকারে গড়া।

শাসকে শোষিত তুমি, শোষণে লালিত তুমি,
আঘাতে আঘাতে চূর্ণ প্রলয়ে ধংস তুমি,
অধিকার-স্বাধিকার, পরাধীন চিৎকার-
মানবতার চরম লজ্জা করো স্বীয় সৎকার ;

সংগ্রাম-বিপ্লব মহযজ্ঞের হুংকার, মজুরের রক্ত প্রশ্নে নিজের ধিক্কার !
মিলগুলো সিলড কেন, কার দোষে দোষাব?
সংসদে বসে রাজা আর কত রোষানল?
যুদ্ধ দেখিনি তবু শুনেছি মুখে বিপ্লব শিখিনি তবু যে রক্ত জলে
অনাচার অবিচার আর কত করবি কর
নিশ্চুপ নিরাবতা দেখে ভেবনা নির্বোধ !

লাল বিপ্লব হবে, জনতার বিচার হবে
মিথ্যে জিহাদি হবে কালেরি কালিমা
অবাক পৃথিবী রবে তাকিয়ে তোদেরি দিকে
ঘৃণায় ফেরাবে মুখ বলবে রাজাকার

সুত্র:


রাজনীতি এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ