৭-২৫ মার্চ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী হওয়ার জন্য বৈঠক হয়েছে - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

৭-২৫ মার্চ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী হওয়ার জন্য বৈঠক হয়েছে



(খবর তরঙ্গ ডটকম)

ঢাকা, ১৬ ডিসেম্বর (খবর তরঙ্গ ডটকম)- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম বলেছেন, জনগণকে বিভ্রান্ত করার জন্য আওয়ামী লীগ সব সময় চটকদারি কৌশল নিয়ে থাকে। তিনি বলেন, ‘শুধু মুসলমানদের ভোট পাওয়ার জন্য আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম রেখেছে। অন্যদিকে বিদেশিদের দেখানোর জন্য রাষ্ট্রকে বলছেন ধর্মনিরপেক্ষ। এভাবেই তারা নানা চটকদারি কৌশল গ্রহণ করে থাকে।’ রোববার জাতীয়তাবাদী সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংস্থা (জাসাস) আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তরিকুল ইসলাম এসব কথা বলেন।

নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে বিজয় দিবস উপলক্ষে আলোচনা ও দুই দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে জাসাস। তরিকুল ইসলাম বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন।
১৯৭১ সালে জাতিকে আল্লাহর ওপর ছেড়ে দিয়ে আওয়ামী লীগ ভারতে পালিয়ে গিয়েছিল অভিযোগ করে তরিকুল ইসলাম বলেন, কিন্তু জিয়াউর রহমান এ রকম করেননি। তিনি অভিযোগ করেন, ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ থেকে ২৫ মার্চ পর্যন্ত পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী কীভাবে হওয়া যায় শুধু এ জন্য বারবার বৈঠক হয়েছে।
তরিকুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা স্বাধীনতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ। তিনি বিজয়ের মাসে অসংখ্য লাশ উপহার দিয়েছেন। নিজস্ব বাহিনী দিয়ে বিশ্বজিেক হত্যা, ‘দেশপ্রেমিক’ মাহমুদুর রহমানকে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন। প্রধানমন্ত্রী এ দেশকে মৃত্যু উপত্যকা ও কারাগারে পরিণত করেছেন বলেও দাবি করেন বিএনপির এই নেতা। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সমর্থিত বুদ্ধিজীবীরা সরকারের ব্যর্থতা দেখে নিস্তব্ধ হয়ে গেছেন। বোকা বনে গেছে।

অনুষ্ঠানে বিএনপির স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহিউদ্দিন খান আলমগীর আওয়ামী লীগের জন্য এখন এক মহাসঙ্কটে পরিণত হয়েছেন।’

মন্ত্রী নিজে যে আইন মানেন না, তা পালন করার কোন প্রয়োজনীয়তা আছে বলে মনে করেন না তিনি।

গয়েশ্বর আরো বলেন, শেষ পর্যন্ত সরকার রাজনৈতিকভাবে পরাজিত হবে বলেই এখন বিড়ালের মত ভেংচি কাটছে। তবে তাদের ভেংচিতে আমরা মোটেও বিচলিত নই। জনগণই সরকারের সব অপকর্মের জবাব দিবে।

বিশ্বজিৎ দাসের লাশ সরকার পতনের শেষ কফিন বলেও তিনি মন্তব্য করেন।


রাজনীতি এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ