মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ও জাতির পিতার আদর্শে যারা বিশ্বাস করে তারাই মুক্তিযোদ্ধা : সুরঞ্জিত

ঢাকা,২২ ডিসেম্বর (খবর তরঙ্গ ডটকম)- অস্ত্র হাতে যুদ্ধ করলেই মুক্তিযোদ্ধা হওয়া যায় না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত।তিনি বলেন, অস্ত্র হাতে যুদ্ধ করলেই মুক্তিযোদ্ধা হওয়া যায়না। এ জন্য মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ও জাতির পিতার আদর্শে বিশ্বাস করতে হয়।‘বর্ডার পার হলেই মুক্তিযোদ্ধা হওয়া যায় না’- বিরোধী দলীয় নেত্রী খালেদা জিয়ার এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে দপ্তরবিহনীন মন্ত্রী এসব কথা বলেন।শনিবার দুপুরে রাজধানীর শাহবাগে কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগারে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক আব্দুর রাজ্জাকের স্মরণ সভায় বক্তব্য রাখছিলেন তিনি।

সুরঞ্জিত বলেন, বিচারপতি নিজামুলের পদত্যাগ নিয়ে অনেকেই অতি উৎসাহি হয়ে কাউকে নোবেল প্রাইজ দেয়ার কথা বলছেন। তাদেরকে মনে রাখতে হবে সাইবার ক্রাইম দণ্ডনীয় অপরাধ। আহমেদ জিয়াউদ্দিন আর্ন্তজাতিক যুদ্ধাপরাধ বিশেষজ্ঞ। বিচারিক কাজ নিয়ে তার সাথে পরামর্শ করাটা স্বাভাবিক। কথোপকথনকে বিকৃত করে প্রকাশ করা হয়েছে। যা ফৌজদারী আইনে দণ্ডনীয় অপরাধ।

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করে আওয়ামী লীগ আগামী নির্বাচনে জয়ী হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে ষড়যন্ত্র করছে। তাদেরকে আমরা রাজপথ ছেড়ে দেবনা। রাজপথ আমরা দখলে রাখব।

এসময় তিনি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, আ স ম আবদুর রব ও ড. কামাল হোসেনকে যুদ্ধাপরাধ বিচারের আন্দোলনে অংশ নেয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, যুদ্ধাপরাধ বিচারের আন্দোলনে অংশ না নিয়ে নিজেদের মুক্তিযোদ্ধা বলতে পারেন না।

সভায় আইন প্রতিমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেন, ২৬ ডিসেম্বর মাঠে নেমে বিরোধী দলীয় নেত্রী পথসভা করবেন। খালেদার পথসভায় সরকারের বাধা দেয়ার পরিকল্পনা নেই। কিন্তু কর্মসূচির নামে নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টা করলে কোন রকম ছাড় দেওয়া হবে না।

শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে সরকার সহযোগিতা করবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, যদি তারা আবারো নৈরাজ্য করেন তবে তাদের অবস্থা ফখরুলের মতোই হবে।

সংগঠনের উপদেষ্টা সৈয়দ হাসান ইমামের সভাপতিত্বে সভায় এটিএম শামসুজ্জামান, পীযূষ বঙ্গোপাধ্যায় প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।