আমি মেজর জিয়াকে হত্যা করেছি ,আমি ফাঁসির আসামি, কাউকে ভয় পাই না:সংসদ সদস্য গিয়াস উদ্দিন আহমেদ - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

আমি মেজর জিয়াকে হত্যা করেছি ,আমি ফাঁসির আসামি, কাউকে ভয় পাই না:সংসদ সদস্য গিয়াস উদ্দিন আহমেদ



ঢাকা, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

তদবির অনুযায়ী কাজ না হওয়ায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষার মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দফতরের কর্মকর্তাকে  গুলি করার হুমকি দিয়েছেন সরকারি দলের সংসদ সদস্য গিয়াস উদ্দিন আহমেদ।প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ড, আফসারুল আমিনের দফতরে বৃহস্পতিবার দুপুর ১টায় এ ঘটনা ঘটে।প্রত্যক্ষদর্শী ও মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা জানান, বৃহ্পতিবার সকালে ময়মনসিংহ -১০ আসনের এমপি গিয়াস উদ্দিন আহমেদ প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আসেন। তিনি একটি ডিও লেটার ফটোকপির জন্য মন্ত্রীর পিও আবু ইউসুফ ভুইয়াকে বলেন।আবু ইউসুফ তা করে দিতে অস্বীকার করেন। এমপি তখন চলে যান। এ সময় মন্ত্রী সচিবালয়ের বাইরে ছিলেন।

মন্ত্রী দফতরে আসলে  গিয়াস উদ্দিন আহমেদ আবার আসেন।  এ সময় মন্ত্রী তাকে একটি কাগজ দেন । এ কাগজ ফটোকপির করতে মন্ত্রীর দফতরের পিওকে এমপি বলেন। মন্ত্রীর পিও আবু ইউসুব বলেন এখানে হবে না । পরে তিনি মন্ত্রীর পিএস রুপন কান্তির রুমে যান। সেখানে কম্পিউটার অপারেটর মাইনুল ইসলামকে ফটোকপি করার জন্য বলেন। মাইনুল ফটোকপির করতে দেরি করলে এমপি গিয়াস রেগে যান এবং দ্রুত কপি করতে বলেন। এতে আরো দেরি হলে তখন এমপি গালিগালাজ করেন। এমপি ক্ষেপে এ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের ‘দুনীতিবাজ’ বলে চিৎকার করতে থাকেন।তিনি গুলি করে হত্যার হুমকি দেন।

এরপর মন্ত্রীর রুমে ঢুকেন গিয়াস উদ্দিন আহমেদ। তিনি মন্ত্রীকে মন্ত্রণালয়ের কর্মকতাদের বিরুদ্ধে নালিশ করেন।  এক পর্যায়ে এমপি গিয়াস মন্ত্রীকে বলেন “আপনি জানেন আমি মেজর জিয়াকে হত্যা করেছি ,আমি ফাঁসির আসামি, কাউকে ভয় পাই না।  আমি আসার সঙ্গে সঙ্গে আমার কাজ করে দিতে হবে।” এ কথা বলে চলে যান এমপি। এমপির সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তিনি কিছু বলতে রাজি হননি।

পরে মন্ত্রী তার দফতরে কর্মকর্তা ও কম্পিউটার অপারেটর মাইনুলের কাজ থেকে সব বিষয় জানেন।

এ বিষয় মন্ত্রীর সঙ্গে কথা হলে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি। তবে বিষয়টি নিয়ে পরে কথা বলবেন বলে জানান তিনি।


বাংলাদেশ এর অন্যান্য খবরসমূহ
রাজনীতি এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ