পবিপ্রবিতে আ.লীগ-ছাত্রলীগ সংঘর্ষ, আহত ১৫

পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে টেন্ডারকে কেন্দ্র করে র‌্যাব-পুলিশের উপস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সঙ্গে স্থানীয়দের দফায় দফায় সংঘর্ষ চলছে। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ ক্যাম্পাসের পূর্বপাশের বাজারে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়।প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল ১১টায় অর্ধকোটি টাকার টেন্ডার দাখিলকে কেন্দ্র করে প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ ও উপজেলা আওয়ামী লীগ-ছাত্রলীগের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষ শুরু হয়। পরে টেন্ডার বাতিল করায় দু’গ্রুপের সংঘর্ষ থামে। উভয় গ্রুপ আবার প্রস্তুতি নিতে থাকে সংঘর্ষের জন্য। ইতোমধ্যে ক্যাম্পাসের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে বিপুলসংখ্যক র‌্যাব ও পুলিশ মোতায়েন করা হয়। তাদের উপস্থিতিতেই দু’পক্ষের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ চলে। এ সময় নিজেদের আত্মরক্ষায় র‌্যাব ও পুলিশ সদস্যরা পিছু হটে।

সংঘর্ষের ছবি তুলতে গেলে ছাত্রলীগের কর্মীরা বৈশাখী টিভি ও দিগন্ত টিভির সাংবাদিকদের ধাওয়া করে। ছবি ক্যামেরা থেকে মুছে ফেলার জন্য একাধিকবার চাপ দেয়। পরে র‌্যাব-পুলিশ সদস্যরা এগিয়ে এলে তারা রক্ষা পান।
আহতদের মধ্যে ছয়জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন সজীব মোল্লা, আনিছুম্মান, সাথিল, তামান্না ও ইভাসহ ১৫ জন।
ছাত্রলীগের বিশ্ববিদ্যালয় সভাপতি মো. কামরুজ্জামান সোহাগ জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্টিনের টেন্ডারের মেয়াদ শেষ হলেও বহিরাগত সন্ত্রাসীরা ক্যাম্পাসে টেন্ডার চলাকালে ছাত্রলীগের কর্মীদের ওপর হামলা করে। আহতদের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিক্যাল সেন্টারে একজনকে ভর্তি ও বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।
এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ কর্মীদের সংঘর্ষ চলছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।