ফখরুলের জামিন ও রিমান্ড নামঞ্জুর - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

ফখরুলের জামিন ও রিমান্ড নামঞ্জুর



ঢাকা, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

রাজধানীর কলাবাগান থানায় গাড়ি ভাঙচুর ও পুলিশের কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে দায়ের মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের জামিন ও রিমান্ড নামঞ্জুর করেছে আদালত।বৃহস্পতিবার সকালে আদালতে মির্জা ফখরুলের উপস্থিতিতে শুনানির পর ঢাকার মহানগর হাকিম মো. সাইফুর রহমান এই আদেশ দিয়ে তাকে কারাগারেই রাখার নির্দেশ দেন।পুলিশের পক্ষে রিমান্ড আবেদনের শুনানি করেন মহানগর পিপি আব্দুল্লাহ আবু। আর রিমান্ডের বিরোধিতা করে মির্জা ফখরুলের জামিন আবেদন করেন তার আইনজীবী ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া ও মাসুদ আহমেদ তালুকদার।

আবেদনে বলা হয়, ‘বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোটের রাজপথ অবরোধে জনগণকে রাস্তায় গাড়ি বের না করতে মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন।’

এর মধ্যদিয়ে তিনি সহিংস কর্মকাণ্ডের নির্দেশ দিয়েছিলেন। তাই এসব ঘটনার সাথে কারা জড়িত, তা বের করার জন্য মির্জা ফখরুলকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা প্রয়োজন।

রিমান্ড আবেদনের বিরোধিতা করে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা বলেন, ‘এ মামলার এজাহারে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নাম নেই। তাই এতদিন পরে এসব মামলায় তাকে বারবার রিমান্ডে নেয়ার আবেদনের কোনো যৌক্তিকতা নেই।’

গত ৯ ডিসেম্বর অবরোধের দিন পুলিশের কাজে বাধা, হামলা, হত্যা চেষ্টা ও গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগে কলাবাগান থানার মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গত ১৬ জানুয়ারি মির্জা ফখরুলকে ১০ দিনের রিমান্ডে নেয়ার আবেদন করে পুলিশ।

ওইদিন বিস্ফোরক আইনে পল্টন থানার আরেক মামলায়ও ফখরুলকে ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়। আগামী ২৭ জানুয়ারি মহানগর হাকিম রেজাউল ইসলামের আদালতে পল্টন থানার মামলায় রিমান্ড আবেদনের শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।

গত বছরের ৯ ডিসেম্বর ১৮ দলের রাজপথ অবরোধের সময় গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় ঢাকায় যে ৩৮টি মামলা হয়, তার প্রায় সবকটিতে আসামি করা হয়েছে মির্জা ফখরুলকে।

এর মধ্যে পল্টন ও শেরেবাংলা নগর থানার দুটি মামলায় ১০ ডিসেম্বর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবকে গ্রেপ্তার করা হয়। ওই দুই মামলায় ফখরুলের জামিন আবেদন মহানগর হাকিম আদালত ও দায়রা জজ আদালতে খারিজ হয়ে গেলে তিনি হাইকোর্টে আবেদন করেন।

হাইকোর্ট ২ জানুয়ারি তাকে ৬ মাসের অন্তবর্তীকালীন জামিন দিলেও পরদিন তাকে নতুন করে মতিঝিল ও সূত্রাপুর থানার দুটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়। ১৫ জানুয়ারি গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগে সূত্রাপুর থানার মামলায় জামিন পান ফখরুল। মতিঝিলের মামলায় নিম্ন আদালতে তার জামিন আবেদন নাকচ হয়ে গেলেও পরে হাইকোর্ট থেকে ছয় মাসের জামিন পান তিনি।

এর আগে গত বছরের ২৯ এপ্রিল বিএনপি নেতা এম ইলিয়াস আলীকে গুমের প্রতিবাদে ডাকা হরতালের দিন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সামনে একটি বাসে অগ্নিসংযোগ ও সচিবালয়ে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় তেজগাঁও ও রমনা থানায় দুটি মামলা হয়। ওই দুই মামলায় ফখরুলসহ বিএনপির অনেক নেতা জেল খেটে জামিনে মুক্তি পান।


রাজনীতি এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ