মির্জা ফখরুল জামিন পেল:পল্টন থানার মামলায়

পল্টন থানার মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের জামিন মঞ্জুর করেছেন আদালত। আর কলাবাগান থানার মামলায় জামিন আবেদনের ওপর শুনানি শেষ হয়েছে। বিরতির পর রায় দেয়া হবে। মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. জহুরুল হক শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ১০টায় জামিন মঞ্জুর করেন। তিনি বিরতির পরে কলাবাগান থানার মামলায় রায় জানাবেন। আসামিপক্ষে জামিন আবেদনের ওপর শুনানি করেন- ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, খন্দকার মাহবুব হোসেন, মোহাম্মদ আলী, মো. রফিকুল ইসলাম খান, মো. রকুনুজ্জামান সোজা প্রমুখ।

রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন মহানগর পিপি আবদুল্লাহ আবু। তিনি পরে সাংবাদিকদের বলেন, দুটি মামলার একটিতেও এখনও আদেশ দেননি বিচারক।

তবে মির্জা ফখরুলের আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার সাংবাদিকদের বলেন, পল্টন থানার মামলায় বিচারক মির্জা ফখরুলের জামিন দিয়েছেন। আর আরেকটি মামলায় দুপুরে রায় দিবেন।

তিনি বিরোধী দল যাতে গণতান্ত্রিক আন্দোলন কর্মসূচি পালন করতে না পারে সেজন্য সরকার চক্রান্ত করে মির্জা ফখরুলসহ বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন।

গত ২৭ জানুয়ারি কলাবাগান থানার মামলায় এবং ২৮ জানুয়ারি পল্টন থানার মামলায় মহানগর দায়রা জজ আদালতে জামিন শুনানির জন্য আবেদন করা হলে গতকাল বুধবার শুনানির জন্য দিন ধার্য ছিল।

পরে বুধবার মির্জা ফখরুলের আইনজীবী অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন মেজবাহর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মহানগর দায়রা জজ আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামান নতুন করে বৃহস্পতিবার দিন ধার্য করেন।

মামলা দুটিতে গাড়ি ভাঙচুর, গাড়িতে অগ্নিসংযোগ, পুলিশের কর্তব্য কাজে বাধা ও হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে।

গত ১০ ডিসেম্বর মির্জা ফখরুলকে পল্টন ও শেরেবাংলানগর থানার পৃথক দুই মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার হওয়ার পর ওই দুই মামলাসহ ৬ মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। এর মধ্যে ৪টি মামলায় তার জামিন মঞ্জুর করেছেন আদালত।

ওই ৬ মামলা ছাড়াও তার বিরুদ্ধে শাহবাগ ও তেজগাঁও থানার আরও ২টি মামলা বিচারাধীন রয়েছে।

এরআগে গত বছর ১৬ মে এ মামলায় তাকে জেলহাজতে যেতে হয়। একমাস জেলহাজতে থাকার পর তিনি মুক্তি পান।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।