সহযোগীতার আশ্বাস সহ সমাবেশের অনুমতি পেল জামায়াত - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

সহযোগীতার আশ্বাস সহ সমাবেশের অনুমতি পেল জামায়াত



ঢাকা, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী পূর্ব ঘোষিত বায়তুল মোকারমের সমাবেশ  কর্মসূচি পালনে পুলিশ  বাধা দেয়ার পরিবর্তে নিরাপত্তা ও সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছেন। ইতিমধ্যেই সমাবেশ করার অনুমতি পেল বাংলাদেশ জামায়াত ইসলামী  দলটির প্রচার বিভাগের সম্পাদক ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ জানান শনিবার জমা দেয়া আবেদনপত্রের বিপরীতে রোববার ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) এ অনুমতি দেয়। একাত্তরে সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারে গঠিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল বাতিলের দাবিতে সম্প্রতি আন্দোলন জোরদার করেছে জামায়াত। দুটি ট্রাইব্যুনালে বিচারাধীন দলটির সাবেক ও বর্তমান সাতজন নেতা বর্তমানে আটক রয়েছেন। ট্রাইব্যুনাল বাতিলের দাবিতে আন্দোলন চলাকালে সম্প্রতি বগুড়ায় পুলিশ ও ছাত্রলীগের হামলায় দলটির ৪জন নেতা-কর্মী নিহত হন। এই ঘটনার প্রতিবাদে সোমবার ঢাকায় সমাবেশ ডাকে জামায়াত।

এ বিষয়ে মহানগর পুলিশের কমিশনার বেনজির আহমেদ রোববার জানিয়েছেন, ‘জামায়াত-শিবির যদি তাদের কর্মসূচি এমন শান্তিপূর্ণভাবে পালন করে যে, তাদের দ্বারা কোনো ফৌজদারি অপরাধ সংঘটিত না হয়, তাহলে পুলিশ তাতে বাধা দেবে না। সহিংস কোনো ঘটনা না ঘটালে তারা পুলিশি নিরাপত্তা পাবে।’ সোমবার সকাল ১০টায় ঢাকায় বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে সমাবেশ ও মিছিলের অনুমতি চেয়ে শনিবার আবেদন করার পরে এ কথা বললেন ডিএমপি কমিশনার বেনজির আহমেদ।

আজ রোববার বেলা ১১টায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের নিরাপত্তা ব্যবস্থা পরিদর্শন করতে এসে সাংবাদিকদের কাছে জামায়াতের কর্মসূচির ব্যাপারে পুলিশের এ অবস্থানের কথা জানান ডিএমপি কমিশনার।

সোমবারের সমাবেশের অনুমতি চেয়ে জামায়াতের আবেদনে বলা হয়েছে ‘বগুড়ায় গুলি করে চার জন জামায়াত-শিবির কর্মী হত্যার প্রতিবাদ, কেয়ারটেকার সরকার পুনঃপ্রবর্তন, জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ, জনদুর্ভোগ লাঘব ও আটক নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে শান্তিপূর্ণ সমাবেশ ও মিছিলের আয়োজন করা হয়েছে।’ আবেদনে দলটি সমাবেশের অনুমতির পাশাপাশি পুলিশের সহযোগিতাও চেয়েছে।

গত ২৮ জানুয়ারি তিনি শিবির কর্মীদের দেখা মাত্র পুলিশকে গুলির নির্দেশ দিয়েছেন বলে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে, তাও অস্বীকার করেন বেনজির। তিনি দাবি করেন, ‘এ ধরনের নির্দেশ বা বক্তব্য আমি দেইনি। যারা এ সংবাদ প্রচার করেছেন, তাদের জিজ্ঞেস করুন।’

গুলির নির্দেশের প্রতিবাদ না করার ব্যাপারে জিজ্ঞেস করলে বেনজির বলেন, ‘আমি যেহেতু এ ধরনের নির্দেশনা দেইনি বা মন্তব্য করিনি, তাই প্রতিবাদ করার প্রয়োজন মনে করিনি। যারা এটা প্রচার করেছে তাদেরই দায়িত্ব তা প্রমাণ করা।’

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাব্যুনালের নিরাপত্তা ব্যবস্থা সম্পর্কে বেনজির বলেন, ‘আমরা ট্রাইব্যুনালের নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনায় রেখেছি। যে কোনো ধরনের নাশকতা এড়াতে আমারা সম্পুর্ণ প্রস্তুত।’

তবে রোববার দুপুরে মহানগর পুলিশের মতিঝিল অঞ্চলের অতিরিক্ত উপকমিশনার মেহেদী হাসান রিয়েল-টাইম নিউজ ডটকমকে বলেন, এখনো পর্যন্ত ডিএমপি থেকে কোনো নির্দেশনা তাদের কাছে পৌঁছায়নি।


এ সম্পর্কিত আরো খবর

রাজনীতি এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ