বিএনপির কাউন্সিল ৯ মার্চ

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)’র ষষ্ঠ কাউন্সিল আগামী ৯ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে। দলের জ্যেষ্ঠ নেতারা কাউন্সিল সফলভাবে সম্পন্ন করতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন । বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, কাউন্সিলকে সামনে রেখে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র, পল্টন ময়দান ও ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে দলের পক্ষ থেকে বুকিং দেয়া হয়েছে। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রকে প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে বলে জানান ওই কেন্দ্রীয় নেতা।

গত রোববার রাতে স্থায়ী কমিটির বৈঠকে কাউন্সিলের তারিখ নির্ধারণ করেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

এদিকে, কাউন্সিল সফল করার জন্য বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া নয়টি উপ-কমিটির অনুমোদন দিয়েছেন। তিনি নিজেই কমিটিগুলোর নেতৃত্বে  থাকবেন এবং আহ্বায়ক হিসেবে থাকবেন কেন্দ্রীয় শীর্ষ নেতারা।

বিএনপির একটি সূত্র জানায়, অভ্যর্থনা বিভাগ উপ-কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে। দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহকে নিরাপত্তা ও সেবা উপ-কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে।

এছাড়া ব্যবস্থাপনা উপ-কমিটির আহ্বায়ক মির্জা আব্বাস, প্রচার উপ-কমিটির আহ্বায়ক গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, অর্থ উপ-কমিটির আহ্বায়ক আবদুল আওয়াল মিন্টু, প্রকাশনা উপ-কমিটির আহ্বায়ক আবদুল্লাহ আল নোমান, আপ্যায়ন ও আবাসন উপ-কমিটির আহ্বায়ক সাদেক হোসেন খোকা এবং সাংস্কৃতিক উপ-কমিটির আহ্বায়ক হিসেবে সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক গাজী মাজহারুল আনোয়ারকে রাখা হয়েছে।

উপ-কমিটির আহ্বায়করা তাদের সুবিধামত দলের পাঁচজন নেতা-কর্মীকে কমিটির সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করতে পারবেন।

৯ মার্চ কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হতে পারে বলে জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম। এ নিয়ে আলাপ-আলোচনা চলছে বলে তিনি জানান।

প্রসঙ্গত, গণপ্রতিনিধিত্ব অধ্যাদেশে প্রতিটি রাজনৈতিক দলের কাউন্সিল তিন বছর পর পর করার বিধান রয়েছে। এ নিয়ম অনুযায়ী গত ডিসেম্বরেই কাউন্সিলের কথা ছিল বিএনপির। বিএনপি কাউন্সিলের সময়সীমা বাড়ানোর অনুরোধ করলে জুন পর্যন্ত সময় বেঁধে দেয় নির্বাচন কমিশন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।