ঝিনাইদহে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডুতে সন্ত্রাসীরা বোমা মেরে ও কুপিয়ে সানোয়ার হোসেন (৪৮) নামে এক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে হত্যা করেছে। বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার তাহেরহুদা গ্রামে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত সানোয়ার হোসেন তাহেরহুদা ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি এবং একই গ্রামের মৃত আমির বিশ্বাসের ছেলে। গুরুতর আহত সানোয়ারকে উদ্ধার করে প্রথমে হরিণাকুণ্ডু উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ও পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে পাঠানো হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়।

হরিনাকুণ্ডু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল ইসলাম জানান, তাহেরহুদা গ্রামের স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সানোয়ার হোসেন নিজ গ্রামের আবুল খালেকের বাড়ির সামনের রাস্তায় রাত সাড়ে ৯টার দিকে দাঁড়িয়ে ছিল।

এ সময় একদল সন্ত্রাসী তাকে রাস্তার ওপর ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে মারাত্মক আহত করে। তার চিৎকারে গ্রামবাসী ছুঁটে এলে সন্ত্রাসীরা পরপর ৪/৫ টি শক্তিশালী বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পালিয়ে যায়।

গুরুতর আহত সানোয়ারকে প্রথমে হরিনাকুণ্ডু স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থার অবনতি হলে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে পাঠানো হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১১টার দিকে সে মারা যায়।

তবে কে বা কারা কেন এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে এ ব্যাপারে পুলিশ কিছুই জানাতে পারেনি। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৫ রাউন্ড রাইফেলের তাজা গুলি উদ্ধার করেছে। এ ব্যাপারে কেউ আটক হয়নি।

ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার আবদুর রহমান জানান, তার মাথা ও মুখে বোমার আঘাত ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সরওয়ার জাহান বাদশা এ হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে প্রকৃত খুনিদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।