কক্সবাজারে স্বতস্ফুর্ত হরতাল পালিত

গত শুক্রবার জুমার নামাজের পর সাধারণ মুসল্লি ও পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় আল্লামা সাইদী মুক্তি পরিষদের ৪ কর্মী নিহত হওয়ার ঘটনার প্রতিবাদে শনিবার কক্সবাজারে জামায়াত ও শিবিরের ডাকা সকাল সন্ধ্যা হরতাল শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হয়েছে ।
কক্সবাজার জেলা প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারি করার পরে পরিস্থিতি ও পরিবেশ স্বাভাবিক  হয়ে আসছে। শনিবার সকাল ১০টার দিকে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রুহুল আমিন জারি করা ১৪৪ ধারা প্রত্যাহার করেছেন। এদিকে নিরীহ পথচারী ও আলেম ওলামাদের ওপর পুলিশি হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে কক্সবাজার বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ও ইসলামী ছাত্রশিবির হরতালের আহবান জানায়। হরতালে সকাল থেকে কক্সবাজার শহরের কোথাও পিকেটিং, মিছিল বা সমাবেশ না হলেও জনগণের স্বতস্ফুর্ততায় কক্সবাজার শহর ছিল একেবারেই ফাঁকা। কোনো ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনাও শহরে  ঘটেনি। এদিকে কক্সবাজার কেন্দ্রীয় বাসর্টামিনাল থেকে কোনো ধরনের দূরপাল্লার যানবাহন চলাচল করতে দেখা যায়নি। কক্সবাজারের  প্রধান সড়কে কয়েকটি রিক্শা, ব্যাটারি চালিত টমটম ছাড়া অন্য কোন যানবাহন চলাচল করতে দেখা যায়নি। কক্সবাজার শহরের প্রধান সড়কের উভয় পার্শ্বের সব দোকান-পাট ও ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকতে দেখা যায়। অন্যদিকে প্রত্যদর্শীরা জানান, কক্সবাজার শহরে সাধারণ মানুষের মাঝে এখনো আতঙ্কে কাটেনি, শহরবাসী আতংকে রয়েছে। সংঘর্ষের পর থেকে কক্সবাজার শহরের রাস্তাঘাট ফাঁকা থাকতে দেখা যায়। এবিষয়ে কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বাবুল আকতার বলেন, হরতালে সকাল থেকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। তারপরও নাশকতা এড়াতে কক্সবাজার শহর জুড়ে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ ও পুলিশের টহল জোরদার করা হয়েছে। কক্সবাজার শহরের অলিগলিতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে পুলিশসহ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে যাচ্ছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।