চবি’তে নিজ দলের কর্মীকে পিটিয়ে আহত করল ছাত্রলীগ

বুধবার সকাল ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শামসুন্নাহার ছাত্রী হলের পার্শ্ববর্তী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। চট্টগ্রামে বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের একদল কর্মী পিটিয়ে আহত করেছে একই সংগঠনের আরেক কর্মী রাকিব হোসেনকে। গুরুতর আহত অবস্থায় রাকিব হোসেনকে প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। রাকিব চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, রাকিব হোসেন বিশ্ববিদ্যালয় রেল স্টেশন থেকে রিকশা করে শামসুন্নাহার ছাত্রী হলের দিকে যাচ্ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ মিনার পার হওয়ার পরপরই সিএনজিচালিত একটি অটোরিকশা করে এসে ছাত্রলীগের ৫-৬ জন কর্মী তার রিকশা থামায়।

তারা রাকিবকে রিকশা থেকে নামিয়ে লোহার রড ও ক্রিকেট স্ট্যাম্প দিয়ে বেদম মারধর করে। মারধর শেষে হামলাকারীরা সিএনজি চালিত অটোরিকশাযোগে চলে যান।

হামলায় তার হাত ও পায়ে মারাত্মক জখম হয়েছে বলে জানান বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারের ডাক্তাররা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর আনোয়ার হোসেন চৌধুরী জানান, ‘পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ হামলার ঘটনা ঘটতে পারে। তবে এখনো পর্যন্ত কেউ এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ করেননি। অভিযোগের পর বিস্তারিত জানা যাবে।’

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, হামলায় আহত রাকিব হোসেন ও হামলাকারীরা সবাই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ সমর্থিত শাটল ট্রেনের বগিভিত্তিক সংগঠনের সক্রিয় সদস্য। রাকিব হোসেন এক সময় বগিভিত্তিক সংগঠনটির শীর্ষ নেতা ছিলেন।

রাকিব হোসেনের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রক্টর ও  সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শিক্ষার্থীকে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করার অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলে জড়িত থাকার অভিযোগে তাকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কয়েকদফা বহিষ্কার করে।

গত বছরের জানুয়ারি মাসে রাকিব হোসেনের এসব কর্মকান্ডের বীতশ্রদ্ধ হয়ে তাকে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ছাত্রলীগের বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি মামুনুল হক। ওই সংবাদ সম্মেলন থেকে তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ে অবাঞ্চিত ঘোষণা করা হয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।