‘হেফাজতে ইসলামের ঢাকামুখী লং মার্চে বাধা দিলে লাগাতার হরতাল’

জুমার নামাজের পর চট্টগ্রামের আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদের সামনে বিশাল সমাবেশ শেষে নগরীতে মিছিল করেছে হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা। হাজার হাজার নেতাকর্মীর বিশাল মিছিলটি বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণের সময় যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

সমাবেশে নেতারা বলেন, হেফাজতে ইসলামের ঢাকামুখী লংমার্চে বাধা দেয়া হলে পরদিন থেকে লাগাতার হরতালের মাধ্যমে সারা দেশ অচল করে দেয়া হবে।

তারা বলেন, লং মার্চের আগেই শাহবাগসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় নাস্তিক ব্লগারদের তৈরি ‘জাগরণ মঞ্চ’ ভেঙে দিতে হবে। তা না হলে লং মার্চ থেকেই তৌহিদী জনতা এসব আস্তানা গুড়িয়ে দেবে।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- হেফাজতে ইসলাম বাংলাদশেরে যুগ্ম মহাসচবি মাওলানা মাঈনুদ্দনি রুহী, হেফাজত নেতা হাফজে তাজুল ইসলাম, আহসান ইসলাম, মাওলানা কারী ফজলুল করমি, মাহবুবুর রহমান আমনি ও নেজামে ইসলাম পাটির্র নেতা হারুন ইজহার।

সমাবেশ শুরুর আগ থেকে আন্দরকিল্লার পুরো এলাকায় ব্যাপক র‌্যাব ও পুলিশ মোতায়েন করা হয়। যেকোনো হামলা ও অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ সর্তক অবন্থানে ছিল।

সমাবেশ শেষে হাজার হাজার জনতার প্রধান মিছিল নগরীর বকসিরহাট লালদীঘির পাড় ও নিউ মার্কেট, এনায়েত বাজার, লাভলেইন, কাজীর দেউড়ি, আসকার দীঘির পাড় হয়ে জামালখান গণজাগরণ মঞ্চের পাশ দিয়ে চকবাজারের দিকে চলে যায়।

এছাড়া বিভিন্ন এলাকা থেকে যোগ দেয়া খণ্ড খণ্ড মিছিল স্ব স্ব এলাকা দিয়ে চলে যেতে দেখা গেছে।

এদিকে, ইসলাম ও নবী (স.) সম্পর্কে কটূক্তিকারী নাস্তিক ব্লগারদের বিচার দাবিতে সুনামগঞ্জে হেফাজতে ইসলামের ব্যানারে বিক্ষোভ ও সমাবেশ করেছেন মুসল্লিরা।

শুক্রবার জুমার নামাজের পর শহরের বিভিন্ন মসজিদ থেকে খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে ট্রাফিক পয়েন্টে সমাবেশে মিলিত হন।

সমাবেশে হেফাজতে ইসলাম সুনামগঞ্জ জেলা শাখার আহবায়ক মাওলানা আব্দুল বছিরের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- প্রখ্যাত মুহাদ্দিস মাওলানা সাজিদুর রহমান, মাওলানা আলী নূর প্রমুখ, মাওলানা বদরুল ইসলাম ও মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।