এই সরকার যতদিন ক্ষমতায় থাকবে ততদিন মায়ের বুক খালি করতেই থাকবে: খালেদা জিয়া

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বর্তমান সরকারকে ধর্মবিরোধী আখ্যা দিয়ে বলেছেন, এরা ধর্মে বিশ্বাস করে না। এরা যতদিন ক্ষমতায় থাকবে ততদিন মানুষের মায়ের বুক খালি করতেই থাকবে।

তিনি শনিবার বিকেল ৪টার দিকে মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর উপজেলার গোবিন্দল প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে বক্তৃতাকালে এসব কথা বলেন।

খালেদা জিয়া বলেন, ‘সরকার মুসলমান হত্যা করছে। হিন্দুদের বাড়ি-ঘর ও মন্দির ভাঙছে। বৌদ্ধদের উপসনালয়ে অগ্নিসংযোগ করছে। সেই কারণে বলছি এরা ধর্ম বিদ্বেষী, এরা ধর্মে বিশ্বাস করে না।’

এরআগে বিকেল সাড়ে ৩টায় ইসলামী সমমনা দলের হরতাল চলাকালে পুলিশের গুলিতে নিহত গোবিন্দল গ্রামের মাওলানা নাসিরের বাসায় যান। সেখানে ওই হরতালে পুলিশের গুলিতে নিহত চারজনের পরিবারকে নগদ তিন লাখ করে টাকা অনুদান দেন।

খালেদা জিয়া আরও বলেন, সরকার তাদের নিজেদের দলীয় লোকজন ও পুলিশ দিয়ে এ পর্যন্ত ১৭০ জনকে হত্যা করেছে। আমরা ক্ষমতায় গেলে এই গণহত্যার বিচারে জন্য ট্রাইব্যুনাল গঠন করব।

তিনি বলেন, ‘আর প্রধানমন্ত্রীকে এ ট্রাইব্যুনালে এক নম্বর আসামি হিসেবে কাঠগড়ায় দাঁড় করানো হবে।’

বিরোধীদলীয় নেতা অভিযোগ করেন, এদেশের মানুষকে মারার জন্য সরকার আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফের কোম্পানির মাধ্যমে ভারত থেকে মেয়াদোত্তীর্ণ ভিটামিন এ ক্যাপসুল আমদানি করেছে, যা খেয়ে ইতোমধে শিশুরা অসুস্থ হয়ে পড়েছে এবং মৃত্যুবরণ করেছে।

তিনি এ সময় সরকারকে মিথ্যাবাদী ও প্রতারক সরকার আখ্যায়িত দিয়ে বলেন, এই সরকারের সঙ্গে কোনো আলোচনা করে লাভ নেই। আন্দোলন চালিয়ে যেতে হবে।

পুলিশ বাহিনীকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, আপনারা কারও কথায় গুলি করবেন না। তাহলে জাতিসংঘে পুলিশের অংশগ্রহণ বন্ধ হয়ে যাবে।

‘যারা গুলি করে মানুষ হত্যা করেছে তাদের পরিচয় আমাদের কাছে আছে। সময় হলে সবার বিচার করা হবে’ বলে জানান তিনি।

জনসভায় আরও বক্তব্য রাখেন- ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ নেজামী ও খেলাফত মজলিশের আমির মাওলানা ইসহাক।

এরপর খালেদা চাড়িগ্রাম হাইস্কুল মাঠে এক পথসভায় বক্তব্য দেবেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।