জামায়াত-শিবিরের হাতে শহীদ হওয়ার বাসনা ফরিদ উদ্দিন মাসউদের

সরকারপন্থী আলেমরা জামায়াত-শিবিরকে রুখতে জেলায় জেলায় সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে । শনিবার এক সমাবেশে ‘বাংলাদেশ ওলামা মাশায়েখ তৌহিদী জনতা সংহতি’ নামে সংগঠনটির আহবায়ক মওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ এই ঘোষণা দেন। একই সঙ্গে জামায়াতের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে গিয়ে তাদের হাতে শহীদ হওয়ার বাসনা ব্যক্ত করেন মাসউদ। শনিবার বিকেলে মতিঝিলে সরকারপন্থী আলেমরা জামায়াত নিষিদ্ধের দাবিতে সমাবেশ করে। এই সমাবেশে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

ফরিদ উদ্দিন মাসউদ জামায়াত ও আবুল আলা মওদূদীকে ইসলামের দুশমন আখ্যা দিয়ে এ দেশ থেকে জামায়াতকে নিষিদ্ধ করার জোর দাবি জানান।

জামায়াত-শিবির কোনো ইসলামী দল নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘তারা ’৭১ সালে এ দেশে হত্যা, ধর্ষণ করেছে। আর এখন তারা রাজনীতির নামে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে। তারা বিভিন্ন সময়ে আল্লাহ, নবী-রাসুল (সা.) সম্পর্কে অবমাননকর উক্তি করেছে। তারা কোনো ইসলামী দল নয়।’

ব্লগে হযরত মুহাম্মদ (সা.) সম্পর্কে অবমাননাকর লেখা ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য জামায়াত-শিবিরকে নাস্তিক ও মুরতাদ বলে আখ্যা দেন মাসউদ।

এছাড়া সমাবেশ থেকে জেএমবি সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে এক সময় গ্রেপ্তার হওয়া এই আলেম জামায়াত-শিবিরের আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো সরকারি মালিকানায় নিয়ে নেওয়ার দাবি জানান।

তিনি ইসলামী ব্যাংকে টাকা রাখাকে হারাম ঘোষণা দিয়ে যারা এই ব্যাংকে টাকা রেখেছেন তাদের তা উঠিয়ে নেওয়ার পরামর্শ দেন। যারা এই ব্যাংকে টাকা রাখবে তারা জাহান্নামী হিসেবে গণ্য হবে বলেও মন্তব্য করেন ফরিদ উদ্দিন মাসউদ।

এদিকে, ধর্মদ্রোহী নাস্তিকদের মুখোশ উন্মোচনের লক্ষ্যে এই সমাবেশের আয়োজন করা হলেও সমাবেশে বক্তারা জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি বন্ধ ও মওদুদীর আদর্শের বিরুদ্ধাচরণ করে বক্তব্য দেন।

তারা বলেন, জামায়াত কোনো ইসলামী দল নয়। তারা তসলিমা নাসরীন ও সালমান রুশদীর মত ইসলামের শত্রু। তাদের যে কোনো মূল্যে প্রতিহত করতে হবে। তারা জামায়াতকে ইসলামী দল প্রমাণের চ্যালেঞ্জও ছুঁড়ে দেন।

বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমানের জন্য দোয়া করে সমাবেশে শেষ হয়। তবে, সমাবেশে খুব কমসংখ্যক উপস্থিতি ছিল। সকাল ১১টা থেকে ৫টা পর্যন্ত মতিঝিলে শ’ তিনেক লোক নিয়ে সমাবেশ করে।

এরআগে সকাল ১০টা থেকে ৮/১০ জন লোক মহাসমাবেশের মঞ্চ থেকে জামায়াতে ইসলামী বিরোধী বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন। এ সময় তারা বারবার মাইকে ঘোষণা করেন, সমাবেশে যোগ দিতে হাজার হাজার মানুষের মিছিল বিভিন্ন রাস্তায় রয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।