কামারখন্দের সাব-স্টেশনটি পুড়িয়ে দেয়ার হুমকি, পুলিশ মোতায়েন

296

1

সিরাজগঞ্জ বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিমপাড় কামারখন্দ উপজেলার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ৩৩/১১ কেভি সাব-স্টেশনটি পুড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে ১৮ দলের নামে লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার বিকেল ৫টায় লিফলেট পাওয়ার পর থেকে সাব-স্টেশনের নিরাপত্তায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

তবে মঙ্গলবার বিকেল ৪টা পর্যন্ত কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। এদিকে, লিফলেট প্রাপ্তি ও সাব-স্টেশনে আকস্মিক পুলিশ পাহারায় স্থানীয়দের মধ্যে গুঞ্জন শুরু হয়েছে। কামারখন্দ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এটিএম আমিনুল ইসলাম জানান, স্থানীয় কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতা উপজেলার চালা শাহবাজপুর বাজার, পাইকশা বাজার ও ঝাঐল ওভার ব্রিজের কাছে কয়েকটি লিফলেট কুড়িয়ে পেয়ে সোমবার বিকেলে তা থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন।

এরপরই চকশাহবাজপুর বাজার এলাকায় গিয়ে আরও কয়েকটি ছেঁড়া লিফলেট উদ্ধার করা হয় বলে তিনি জানান। ১৮ দলের বরাত দিয়ে কম্পিউটারে টাইপ করা ওই লিফলেটে বলা হয়, ‘২৬ মার্চের যে কোনো সময় কামারখন্দের সাব-স্টেশনটি পুড়িয়ে দেয়া হবে।’ এতে আরো বলা হয়, ‘বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ঝাঐল ইউনিয়নের নেতা-কর্মীরা বেশি বেড়ে গেছে। তোদের মরার যদি ইচ্ছা না থাকে, তাহলে নিচের দিকে মাথা দিয়ে চলার চেষ্টা করবি। কামারখন্দ এলাকার চকশাহবাজপুর ও ঝাঐল ইউনিয়নের বিএনপি ও জামায়াতসহ ১৮ দলের নেতাকর্মীরা এখনও বেঁচে আছে, মরে নাই। তোরা রগ কাটা দেখস নাই। আমরা যে কোন সময়ে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত আছি। সাব-স্টেশনে যেদিন আগুন দিব, সেদিন শক্তির পরীক্ষা হবে। পারলে প্রস্তত থাকবি।’ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেন, ওই লিফলেট প্রাপ্তির পর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবগত করে সোমবার বিকেল থেকে সাব-স্টেশনের নিরাপত্তায় একজন সহকারী-উপ-পরিদর্শকের নেতৃত্বে পালাক্রমে পাঁচজন পুলিশ পাহারা দিচ্ছে। মঙ্গলবার সরেজমিন গিয়ে দেখা, যায় সাব-স্টেশন এলাকায় পুলিশ পাহারায় রয়েছে। কর্তব্যরত সহকারী উপ-পরিদর্শক আবু রায়হান বলেন, এলাকার লোকজনকে বিষয়টি অবগত করে তাদের সহযোগিতা কামনা করা হয়েছে।

তবে বিকেল সোয়া ৪টা পর্যন্ত কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি বলে তিনি জানান। সিরাজগঞ্জ পল্লী বিদ্যুতের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) তুষার কান্তি দেবনাথ বলেন, কামারখন্দ সাব-স্টেশনের জুনিয়র প্রকৌশলী ফরহাদ মিয়ার কাছ থেকে লিফলেট ও পুলিশ পাহারার বিষয়টি অবগত হয়েছি। উপ-মহাব্যস্থাপক সুলতান নাসিমুল হক বলেন, সকল কমকর্তা-কর্মচারীদেরকে বিশেষভাবে সতর্ক থাকার বিষয়ে পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোকাদ্দেস আলী বলেন, দুস্কৃতিকারীরা এ ধরনের লিফলেট বিতরণ করে জনগণের মধ্যে আতঙ্ক ও রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে সংঘাতের সৃষ্টি করছে। তিনি বলেন, ‘ওই লিফলেটের সাথে ১৮ দলীয় জোটের কোনো সম্পৃক্ততা নেই। আমরা বিষয়টির তদন্তপূর্বক জড়িতদের শাস্তি দাবি করছি।’

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।