হেফাজত ইসলামের লংমার্চে এরশাদের পূর্ণ সমর্থন

আল্লামা শফীর নেতৃত্বাধীন হেফাজতে ইসলামের ডাকা আগামী ৬ এপ্রিল ‘নাস্তিক’ ব্লগারদের শাস্তির দাবিতে  লংমার্চে পূর্ণ সমর্থন দিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। শনিবার দুপুরে চট্টগ্রামের মুসলিম ইনস্টিটিউট হলে নগর জাতীয় পার্টির সম্মেলন উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এরশাদ এ সমর্থনের কথা জানান। ‘নাস্তিক’ ব্লগারদের শাস্তি দাবি করে এরশাদ বলেন, “শাহবাগের আন্দোলন জাতিকে দু’ভাগে বিভক্ত করে ফেলেছে। একভাগে আছে নাস্তিকরা আরেকভাগে আছে মুসলিমরা।” এদেশে  ইসলামের জাগরণ কেউ ঠেকাতে পারবে না বলেও মন্তব্য করেন সাবেক এই রাষ্ট্রপতি।

তিনি বলেন, “এদেশে জাগরণ হয়েছিল দুবার, ১৯৭০ ও ৭১ সালে। এছাড়া আর কখনো জাগরণ হয়নি। পুলিশি পাহারায় কোনো জাগরণ হতে পারে না।” তাই শাহবাগের গণজাগরণ মঞ্চ ভেঙে দেয়ার আহ্বান জানান এরশাদ।
এরশাদ বলেন, “ওয়ান ইলেভেন কিভাবে এসেছিল আমরা সবাই জানি। কারা লগি-বৈঠা দিয়ে মানুষ খুন করেছিল তা-ও আমরা জানি। ওয়ান ইলেভেনের পর আপনি (প্রধানমন্ত্রী) ও খালেদা জিয়া কারাগারে গিয়েছিলেন। আমার চেয়ারম্যানশিপ চলে গিয়েছিল। আমরা সবাই কমবেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিলাম। এখন আবারো যে ওয়ান ইলেভেন আসবে না এর নিশ্চয়তা কে দেবে? সেজন্য আলোচনায় বসে, সংলাপের মাধ্যমে সমঝোতা করুন। না হলে দেশে রক্তগঙ্গা বইয়ে যাবে।”
এরশাদ বলেন, ‘মহাজোটে থাকব কি থাকব না সেটা সময় নির্ধারণ করবে। জাতীয় পার্টি আগামীতে এককভাবে ক্ষমতায় যেতে চায়। কারো ক্ষমতায় যাবার সিঁড়ি হতে চায় না।”
জাতীয় পার্টির চট্টগ্রাম মহানগর শাখার আহ্বায়ক সোলায়মান আলম শেঠের সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য দেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ ও মহাসচিব রহুল আমিন হাওলাদার প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।