কুমিল্লায় ট্রেন লাইনচ্যুত: সারাদেশে রেল যোগাযোগ বন্ধ

হরতালকারীদের তত্পরাতার মুখে সারাদেশে রেল যোগাযোগ বন্ধ ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার ভোরে ঢাকা-চট্টগ্রামগামী তূর্ণানিশীথা একপ্রেসের ইঞ্জিনসহ সাতটি বগি লাইনচ্যুত হওয়ার পরে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। হরতাল সমর্থকরা রেললাইনের ফিসপ্লেট তুলে নেয়ায় মঙ্গলবার ভোর পৌনে ৫টার দিকে কুমিল্লার পদুয়ার বাজার  রেলক্রসিং এলাকায় তূর্ণানিশীথা লাইনচ্যুত হয়।

এই দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে অন্তত ২০ জন।  আটকা পড়েছে ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটের তিনটি ট্রেন। বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে ঢাকা-সিলেট ও ঢাকা-ময়মনসিংহ রুটের রেল যোগাযোগ।

তূর্ণানিশীথার যাত্রী হবিগঞ্জের জামান জানান, ‘ট্রেনটি কুমিল্লার পদুয়ার বাজার ছেড়ে গেলে হঠাৎ করে রেলের বগি কেপে উঠে এবং কিছুক্ষণের মধ্যে ইঞ্জিন ও ৬ টি বগি লাইনচ্যুত হয়ে রাস্তার পাশে পড়ে যায়।’

এ দুর্ঘটনায় আহত হন ২০ জন যাত্রী। তবে কেউ নিহত হয়নি। ট্রেনের সুস্থ্য যাত্রীরা আহত যাত্রীদের উদ্ধার করে। আহতদের কুমিলৱা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে, যোগ করেন জামান।

রেলের কুমিল্লা অঞ্চলের উর্ধ্বতন সহকারি প্রকৌশলী মোহাম্মদ হামিদুল হক জানায়, ‘রেল লাইনের ফিসপ্লেট উপড়ে ফেলার কারনেই এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। আখাউড়া ও লাকসাম থেকে দুটি উদ্ধারকারী ট্রেন ঘটনাস্থলে পৌছে উদ্ধার কাজ চালাবে।

সকাল সোয়ার ৮ টায় উদ্ধার কাজ শুরু হয়নি। রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হতে বেশ কয়েকঘন্টা সময় লাগবে। হরতালের কারনে ঐ ট্রেনের যাত্রীরা বিকল্প কোন যানবাহন না পাওয়া দুর্ঘটনা স্থলের আশপাশে অবস্থান করছে। তারা একটি বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা করার দাবী জানিয়েছে।

এদিকে আজ হরতাল চলাকালে সারাদেশে নতুন করে আর কোনো ট্রেন না ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে রেলওয়ের একটি সূত্র।

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।