মনোহরগঞ্জে আওয়ামীলীগ-বিএনপি সংঘর্ষে যুবদল সেক্রেটারীসহ আহত ২

কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ আওয়ামীলীগ-বিএনপি সংঘর্ষে দুই যুবদল নেতা গুরুতর আহত হয়েছে। গত সোমবার বিকেলে বিএনপি শীর্ষ নেতাদের মুক্তি ও হরতালের সমর্থনে উপজেলা সদরে বিক্ষোভ মিছিল করে দলটি। মিছিল চলাকালে দোকানের সার্টারে হাত দেয়াকে কেন্দ্র করে বিএনপি ও আওয়ামীলীগ কর্মীদের মাঝে সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষে উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাসুদুল আলম বাচ্চু ও যুবদল কর্মী মঞ্জুরুল ইসলাম আহত হয়। গুরুতর আহত মাসুদুল আলম বাচ্চুকে লাকসাম ফেয়ার হেল্থ হাসপাতাল ও যুবদল কর্মী মঞ্জুরুল ইসলামকে লাকসাম সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা যায়, মিছিল চলাকালে মিছিলকারীরা সাটারে হাত দেওয়া কেন্দ্র করে বিশৃংখলা শুরু হলে যুবদল নেতা বাচ্চু ঘটনাটি সমাধানে এগিয়ে আসলে সরকার দলীয় সমর্থকরা তাকে লাঠি ও হাতুড়ে দিয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। প্রতিবাদে বিএনপি নেতা কর্মীরা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক মোখতার হোসেন সুমনের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়ী ঘর ভাংচুর করলে আ.লীগের নেতাকর্মীরা বিএনপি নেতা মনছুরের রাকিব জেনারেল ষ্টোর ও মনছুর কনফেকশনারী ভাংচুর করে। তাছাড়া উভয় পক্ষের হামলায় বাজারে আরো কিছু দোকানপাট ভাংচুর হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে মনোহরগঞ্জ থানা পুলিশ বাজারে অবস্থান নেয়। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। উক্ত ঘটনার জের হিসেবে দিনভর উপজেলাস্থ বাইশগাঁও, মান্দারগাঁও, দাদঘর সহ বিভিন্ন স্থানে উভয় দলের নেতাকর্মীদের মাঝে কয়েক দফা সংঘর্ষ ঘটে।
আহত যুবদল নেতা মাসুদুল আলম বাচ্চু জানান- আমরা শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি শেষ করলেও আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ কর্মীরা আমাদের উপর পরিকল্পিত হামলা ও আমাদের দোকানপাট ভাংচুর ও লুটপাট চালায়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।