হরতাল নয় ১৮ এপ্রিল ১৮ দলের সমাবেশ

১৮ এপ্রিল প্রতিবাদ সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮দলীয় জোট, হরতালের পরিবর্তে। বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় রাজধানীর নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্য্যালয়ের সামনে এ প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। মঙ্গলবার বিকেলে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার‌্যালয়ে ১৮দলীয় জোটের শরিকদলগুলোর মহাসচিব পর‌্যায়ের এক বৈঠক শেষে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন সংবাদ সম্মেলনে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

নিখোঁজ বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এম ইলিয়াস আলীসহ গুম হওয়া সকল নেতাকর্মীর সন্ধান না দেয়ার প্রতিবাদে, ‘মিথ্যা-বানোয়াট’ মামলায় আটক ১৮দলের শীর্ষ নেতাদের মুক্তি ও নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুনর্বহালের দাবিতে এ প্রতিবাদ সমাবেশ করা হবে। এতে ১৮দলের নেতারা বক্তব্য দেবেন।
ড. মোশাররফ বলেন, “বিএনপির স্থায়ী কমিটির গত সভার পরে আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো কর্মসূচি ঘোষণা না করলেও পত্র-পত্রিকায় ১৭ ও ১৮ এপ্রিল হরতাল দেয়া হবে এমন খবর প্রকাশিত হয়। তবে দল থেকে এই কর্মসূচির বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত গণমাধ্যমে জানানো হয়নি।তবুও জনমনে এ সংবাদে প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়।
তিনি আরো বলেন, “এছাড়াও ওই সংবাদের পরিপ্রেক্ষিতে ১৭ ও ১৮ এপ্রিল হিন্দু সম্প্রদায়ের নাঙ্গলবন্দের পুণ্যস্নানের কর্মসূচি থাকায় তারা বিএনপি চেয়ারপারসনের কাছে এই দুই দিন হরতাল না দিতে অনুরোধ জানান।তাদের এই অনুরোধের কারণে এবং সকল ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শনের জন্য আমরা হরতালের পরিবর্তে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”
দলের সিদ্ধান্ত না হলে হরতালের পরিবর্তে কর্মসূচি দেয়া্র কথা বলা হচ্ছে কেন? সাংবাদিকরা জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আসলে হরতালই বাস্তবতা ছিল।কিন্তু হিন্দুদের এ কর্মসূচিতে শুধু বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকা থেকেই নয়, ভারত থেকেও সম্প্রদায়ের লোকজন আসেন।সেই বিবেচনায় আমরা কর্মসূচি পরিবর্তন করেছি।এছাড়া হরতালের বিষয়ে আমাদের সিদ্ধান্ত ছিল না। থাকলে ঘোষণা করা হতো। তবে আমরা কঠিন কর্মসূচির মধ্যে আছি। নতুন কর্মসূচির সিদ্ধান্ত হলে পরে তা জানানো হবে।”
গত ১০ এপ্রিলের স্থগিত হওয়া সমাবেশের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “সমাবেশ হবে। তবে পরে দিন তারিখ ঠিক করে জানানো হবে।”
এর আগে বৈঠকে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা ছাড়া শরিক দলের নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জামায়াতের মজলিসে শূরার সদস্য রেদওয়ানুল্লাহ শাহীদী, এলডিপির ড. রেদওয়ান আহমেদ, এনপিপির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, ন্যাপের গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া, লেবার পার্টির হামদুল্লাহ আল মাহদী, ইসলামিক পার্টির আবদুর রশিদ, কল্যাণ পার্টির আবদুল মালেক চৌধুরী প্রমুখ।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।