ছাত্রলীগ নেতার বাড়ীতে উপজেলা আ’লীগ সভাপতির হামলা

শুক্রবার রাতে বগুড়া সরকারি আজিজুল কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক কামরুল হাসান উজ্জলের বাড়িতে হামলা ভাঙচুর, আগুন ও লুটপাট হয়েছে। সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু সুফিয়ান শফিকের লোকজন এ হামলা করেছে বলে অভিযোগ করেছেন ছাত্রলীগ নেতা উজ্জল।  বগুড়া সদরের উলিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এতে তিনজন আহত হন। ঘটনার পর থেকে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

শাখারিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা নজরুল ইসলাম মাস্টার জানান, গ্রামে জমি-জমা সক্রান্ত সালিস বসেছিল। সেখানে শাখারিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবু সফিয়ান শফিক উপস্থিত ছিলেন। সালিসি বৈঠকের এক পর্যায়ে ছাত্রলীগ নেতা সালিসি বৈঠক অমান্য করলে বগুড়া সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা হয়। কামরুল হাসান উজ্জ্বল শামীমকে সালিসি বৈঠক থেকে নিয়ে আসে।

এ ঘটনার জের ধরে শুক্রবার রাতে প্রতিপক্ষ ব্যাপক ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে উজ্জলের বাড়িতে লাঠি, দেশীঅস্ত্র, অগ্নেয়াস্ত্রসহ বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় ব্যাপক ভাঙচুর ও খড়ের পলায় আগুন লাগিয়ে দেয়। এতে জুলেখা বেগম (৫০), দৈনিক ইনকিলাবের আঞ্চলিক প্রতিনিধি মহসিন আলী রাজুর স্ত্রী নাদিরা পারভীন (৩২) সহ তিনজন আহত হয়।

স্থানীয়রা জানান, মিছিলসহকারে যেভাবে আগ্নেয়াস্ত্র হাতে নিয়ে বাড়িতে হামলা করে, তাতে গ্রামবাসী আতঙ্কিত হয়ে তাদের সামনে যেতে পারেনি।

এ বিষয়ে শুক্রবার রাত সোয়া ১০ টায় চেয়ারম্যান আবু সুফিয়ান শফিক বলেন, “আমি যেহেতু চেয়ারম্যান এবং আমাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। সে কারণে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসি এই হামলা করে থাকতে পারে।”

বগুড়া ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র অফিসার সোহেল রানা জানান, ঘটনা জানার পর ফায়ার সাভিসের একটি ইউনিট আগুন নেভায়।

সদর থানার ওসি সৈয়দ সহিদ আলম আগুন ও ভাঙচুরের ঘটনা স্বীকার করে বলেন, “ঘটনার পর পরই এলাকা পরিদর্শন করেছি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।”


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।