জামিন পেলেন মির্জা ফখরুল

প্রধান বিরোধী দল বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে রাজধানীর মালিবাগ, মৌচাক ও সিদ্ধেশ্বরীতে পুলিশের ওপর হামলা, গাড়ি ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের পাঁচ মামলায়  ছয় মাসের জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। রোববার বিচারপতি মো. রেজাউল হক ও বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। মির্জা ফখরুলের পক্ষে আদালতে ছিলেন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ এমপি, খন্দকার মাহবুব হোসেন ও এ জে মোহাম্মদ আলী। এর আগে গত ২৮ এপ্রিল ফখরুলের জামিন চেয়ে করা আবেদন শুনতে বিব্রত বোধ করেন হাইকোর্টের বেঞ্চের এক বিচারপতি।

রোববার ফখরুলের আইনজীবীরা বিচারপতি কামরুল ইসলাম সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে শুনানি করতে যান। এক পর্যায়ে ওই বেঞ্চের কনিষ্ঠ বিচারপতি শেখ মো. জাকির হোসেন আবেদনগুলো শুনতে বিব্রতবোধ করেন।

গত ৭ এপ্রিল রাজধানীর পল্টন, রমনা ও শাহজাহানপুর থানায় দায়ের করা পৃথক সাতটি মামলায় নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ বিএনপির শীর্ষ ১০ নেতা। তাদের জামিনের আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন ঢাকার পৃথক তিন মহানগর হাকিম শাহরিয়ার মাহমুদ আদনান, সাইফুর রহমান ও আসাদুজ্জামান নূরের আদালত।

ফখরুলকে গ্রেফতারের পর কাশিমপুর কারাগারে নেয়া হয়। সেখানে অসুস্থ হয়ে পড়লে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেলে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।