মুক্তি পেলেন মির্জা ফখরুল

সোমবার মুক্তি পেয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ৫ মামলায় দীর্ঘ ৩০ দিন কারাভোগের পর বিকেল পৌনে ৬টায় তিনি মুক্তি পান। এ সময় তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। রবিবার মির্জা ফখরুলকে সবক’টি মামলায় ৬ মাসের জামিন মঞ্জুর করেন হাই কোর্ট। এরপর গতকালই ঢাকার সিএমএম আদালতে জামিননামা দাখিল করেন তার আইনজীবী অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন মেজবাহ। এ সময় তিনি বলেন, মির্জা ফখরুলের নামে আর কোনো মামলা না থাকায় মুক্তি পেতে আর কোনো বাধা নেই।
কারাগারে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে মির্জা ফখরুলকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। উল্লেখ্য, গত ৭ এপ্রিল মির্জা আলমগীরসহ বিএনপির এ শীর্ষ নেতারা পৃথক ৭ মামলায় ঢাকার সিএমএম আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে আদালত তাদের জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠান।

অন্য নেতাদের মধ্যে বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, যুগ্ম মহাসচিব বরকতউল্লাহ বুলু ও শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানি আগেই মুক্তি পান। কিন্তু হাই কোর্ট থেকে জামিন পেলেও জামিন আদেশ সিএমএম আদালতে না আসায় এখনো জামিননামা দাখিল করতে পারেনি বিএনপি স্থায়ী কমিটির দুই সদস্য মির্জা আব্বাস ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস-চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, যুগ্ম মহাসচিব আমান উল্লাহ আমান ও যুবদলের সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল।

তবে সবগুলো মামলায় এখনো জামিন পাননি রিজভী আহমেদ।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।