খালেদার আলটিমেটামে সরকার পতনের ষড়যন্ত্র ব্যার্থ হয়েছে: ১৪ দল

জামায়াত ও হেফাজতকে সঙ্গে নিয়ে বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়া  ৪৮ ঘণ্টার আলটিমেটাম দিয়ে সরকার পতনের ষড়যন্ত্র করেছিলেন বলে অভিযোগ করেছেন ১৪ দলের নেতারা। বিরোধীদলীয় নেতার এই ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হয়েছে মন্তব্য করে খালেদা জিয়া ও শাহ আহমদ শফীর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়ারও আহবান জানান তারা। মঙ্গলবার দুপুরে ধানমন্ডিতে দলীয় সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত ১৪ দলের এক সভা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ সব কথা বলেন তারা।
সভা শেষে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেন, খালেদা জিয়া পরিকল্পিতভাবে ৪ মে সমাবেশ ডেকে ৪৮ ঘণ্টার আলটিমেটাম দিয়েছেন। তার উদ্দেশ্য ছিল ৬ মে জামায়াত ও বিএনপিকে মাঠে নামিয়ে ঢাকাকে তছনছ করে সরকার ও গণতন্ত্রকে হত্যা করা।

তিনি বলেন, হেফাজতে ইসলাম ৫ মে খালেদা জিয়ার নির্দেশে সারা শহরে হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাট করেছে। কিন্তু শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তারা পরাজিত হয়েছে।

সেদিন রাতে সরকার গণহত্যা চালিয়েছিল বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এমকে আনোয়ারের এমন বক্তব্যকে প্রত্যাখ্যান করে তোফায়েল বলেন, বিএনপির এমন বক্তব্য ইতিহাসের সর্বোচ্চ মিথ্যাচার। এটাকে গণহত্যা আখ্যায়িত করে তারা ’৭১ এর গণহত্যাকে খাটো করতে চায়।

ইসলামের হেফাজত নয় হেফাজতে ইসলাম স্বাধীনতাবিরোধীদের রক্ষা করতেই সেদিন মাঠে নেমেছিল বলে মন্তব্য করেন তিনি।

মতিঝিলে হেফাজতে ইসলামের অবস্থান তুলে দেয়া জনগণের দাবি ছিল উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম বলেন, পুলিশসহ দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সম্পূর্ণ রক্তপাতহীন অবস্থায় তাদের সেখান থেকে সরিয়ে দিয়েছিল।

মতিঝিলে গণহত্যা করে লাশ গুম করা হয়েছে বিএনপির এমন বক্তব্যকে চরম মিথ্যাচার বলে আখ্যায়িত করেন তিনি।

তিনি বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নয়, হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা খালেদা জিয়ার নির্দেশে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাট করেছে। এর সম্পূর্ণ দায়দায়িত্ব বিএনপিকে নিতে হবে এবং মতিঝিল ও এর আশশেপাশের এলাকায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের ক্ষতিপূরণ দেবার দাবি জানান তিনি।

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেন,  বিএনপির ৪৮ ঘণ্টার আলটিমেটামের কোনো কার্যকারিতা নেই। এটি কোনো কাজেই আসেনি।

মতিঝিলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানের মাত্র ১০ মিনিটের মাথায় হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা পালিয়ে গিয়েছে।

জনগণের বিপুলসংখ্যক সম্পত্তি বিনষ্টের দায়ে খালেদা জিয়া ও আল্লামা শফীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নিকট দাবি জানান তিনি।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় জাসদের কার্যকরি সভাপতি মাঈনউদ্দিন খান বাদল, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শরীফ নুরুল আম্বিয়া, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক নুরুর রহমান সেলিম, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আফম বাহাউদ্দিন নাছিম, দপ্তর সম্পাদক আব্দুল মান্নান খান, উপ-দপ্তর সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাস প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।