সংঘর্ষ-গাড়ি ভাংচুর, অগ্নিসংযোগের মধ্য দিয়ে হরতাল চলছে

রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে বিক্ষোভ মিছিল, সংঘর্ষ ও গাড়ি ভাংচুর, অগ্নিসংযোগের মধ্য দিয়ে আঠারো দলের কড়া হরতাল পালিত হচ্ছে। সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধের প্রতিবাদ, নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন ও নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে সরাদেশে বিরোধী দল বিএনপি নেতৃত্ত্বাধীন ১৮ দলীয় জোট হরতাল আহ্বান করে। শুক্রবার বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু এই হরতালের ঘোষণা দেন। এদিকে, হরতালে যেকোনো ধরনের নাশকতা এড়াতে রাজধানীজুড়ে কড়া নিরাপত্তা নেয়া হয়েছে। সড়কের মোড় এবং বিভিন্ন গলির মুখে অবস্থান নিয়েছে র্যা ব ও পুলিশ। সাদা পোশাকে তৎপর রয়েছেন পুলিশের গোয়েন্দা শাখার সদস্যরা।

হরতালে রাজধানীতে যানবাহন চলাচল প্রায় বন্ধ রয়েছে। সকাল থেকে হাতেগোনা দুএকটি গণপরিবহন চলতে দেখা গেলেও ব্যক্তিগত গাড়ির তেমন দেখা মেলেনি। অফিসগামী মানুষের ভরসা ছিল হিউম্যান হলার, সিএনজি অটোরিকশা ও রিকশা। তবে অনেকেই গাড়ির অভাবে দুর্ভোগে পড়েন।

এদিকে, হরতালের সমর্থনে সকালে জাতীয় সংসদ ভবন এলাকায় মিছিল বের করে বিএনপির সংসদ সদস্যরা।

গাবতলীর মাজার রোড ও দারুস সালাম পুলিশ ফাঁড়ির সামনে হরতালের সমর্থনে মিছিল বের করে ছাত্রদল। এ সময় বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। ফার্মগেট ও তেজগাও এলাকায় মিছিল করে ছাত্রদল। এসব এলাকায় ককটেল বিস্ফোরণ ঘটে।

এদিকে বনানীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্রশিবির। এ সশয় শিবিরকর্মীরা রাস্তায় আগুন জ্বালিয়ে অবরধে করে রাখে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নেভায়।

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদল শেরেবাংলা নগরে ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল লক্ষীবাজার এলাকায় মিছিল বের করে। লক্ষীবাজারে গাড়ি ভাংচুর করা হয়।

যাত্রাবাড়ীতে হরতালের সমর্থনে মিছিল করেছে জামায়াত। একই এলাকায় যুবদল বিক্ষোভ মিছিল করে। বিক্ষুব্ধ যবদল কর্মীরা এ সময় বেশ কয়েকটি গাড়িতে ভাংচুর চালায়।

এছাড়াও রাজধানীর শনির আখড়া ও ধলপুরে মিছিল করে ছাত্রশিবির। বাবুবাজার ব্রিজের কাছে ও গেন্ডারিয়া রেললাইনে জামায়াতের মিছিলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে।

মালিবাগ চৌধুরীপাড়ায় রামপুরা থানা যুবদল মিছিল করে। এ সময় একটি কাভার্ডভ্যানে আগুন দেয় হরতালকারীরা। এদিকে সেগুনবাগিচায় শাহবাগ থানা যুবদল বিক্ষোভ মিছিল করে।

কামরাঙ্গীরচরে যুবদল মিছিল বের করলে পুলিশ তাদেরকে মিছিলে বাধা দিলে পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া হয় যুবদলকর্মীদের। এ সময় তারা গাড়ি ভাংচুর করে।

রাজধানীর শ্যামলীতে আদাবর থানা বিএনপি মিছিল বের করলে পুলিশ বাধা দিয়ে মিছিল থামিয়ে দেয়। সকালে এই এলাকায় সাতটি ককটেল বিস্ফোরণ হয়েছে।

এছাড়াও রাজধানীর বাইরে চট্টগ্রাম নগরীতে হরতালের সমর্থনে বিএনপি, জামায়াত ও শিবির পৃথকভাবে মিছিল বের করে। চট্টগ্রামে নগরীতে  ককটেল বিস্ফোরণ ও যানবাহনে ভাংচুর চালানো হয়।

রাজশাহী নগরীরর টিবি পুকুরপাড় বাইপাস মোড়ে একটি নৈশকোচে আগুন দিয়েছে হরতাল সমর্থকরা। এছাড়াও নগরীর বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষিপ্তভাবে মিছিল করেছে হরতালকারীরা।

নারায়ণগঞ্জের কালীবাজারে মিছিল করেছে যুবদল, মিছিল ছত্রভঙ্গ করতে চাইলে পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ায় জড়িয়ে পড়ে যুবদলকর্মীরা। এ সময় আশ পাশের এলাকায় বেশ কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

এদিকে দিনাজপুর দশমাইলে রাস্তায় টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে রাস্তাটি অবরোধ করেছে হরতাল সমর্থকরা। এছাড়াও সাতক্ষীরায় বেশ কয়েকটি যানবাহনে ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।
হরতালকারীরা রাস্তায় অগ্নিসংযোগ করে।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।