আওয়ামী লীগ সরকার যেখানে ব্যর্থ হয়েছিলেন সেখানে সফল ছিলেন জিয়াউর রহমান

“আওয়ামী লীগ সরকারের প্রধান যেখানে ব্যর্থ হয়েছিলেন সেখানে সফল ছিলেন জিয়াউর রহমান। এ কারণেই জীবিত জিয়ার চেয়ে মৃত জিয়াকে বেশি ভয় পায় আওয়ামী লীগ। সে ভয়েই জিয়া আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নাম পরিবর্তন করা হয়েছে।” শনিবার বিকেলে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) আয়োজিত রমনা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৩২তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ঢাকা মহানগরের আহ্বায়ক সাদেক হোসেন খোকা। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন দলের প্রচার সম্পাদক জয়নুল আবদীন ফারুক।

অনুষ্ঠানে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া উপস্থিত থাকলেও তিনি ছিলেন দর্শক গ্যালারিতে। তিনি বক্তব্য দেননি।

বক্তব্য দেন বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এম ওসমান ফারুক, অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, সাবেক মন্ত্রী আলতাফ হোসেন চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েরর সাবেক উপাচার্য্যা প্রফেসর এমাজউদ্দীন আহমেদ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচারয ড. খন্দকার মোস্তাহিদুর রহমান, অধ্যাপক মাহবুব উল্লাহ, যুবদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুস সালাম, জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সভাপতি আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল প্রমুখ।

সামরিক বাহিনী থেকে আসা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানকে জননন্দিত নেতা আখ্যায়িত করেন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। তিনি বলেন, “সিপাহী বিপ্লবের মাধ্যমে জিয়াউর রহমানের আবির্ভাব ঘটেছে। তার জীবনাদর্শ থেকে তরুণদের অনেক কিছু শেখার রয়েছে। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ছিলেন দুর্নীতিমুক্ত।”

মওদুদ বলেন, “তারেক রহমানকে ধরতে কোনো ইন্টারপোলের দরকার হবে না। সময় হলে তিনি স্বেচ্ছায় দেশে ফিরে আসবেন।”

আওয়ামী লীগকে উদ্দেশ্য করে মওদুদ বলেন, “ইন্টারপোলের কোনো ক্ষমতা নেই তাকে ধরার। তারা পারবে অপরাধীর সন্ধান দিতে। কিন্তু তারেক রহমানকে আপিল বিভাগ শর্তমুক্ত জামিন দিয়েছেন। জামিনের ওই কপি না পড়েই আওয়ামী লীগ সরকারের মন্ত্রীরা বক্তব্য দেন।”

তারেক রহমানের মামলার কথা উল্লেখ করে মওদুদ বলেন, “যতগুলো মামলা রয়েছে এর একটাও প্রমাণ করতে পারেনি। আবার যে মামলাটি বিচারাধীন রয়েছে তাও প্রমাণ করতে পারবে বলে মনে হয় না।”


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।