আন্দোলনে পুলিশের অবস্থান কোথায় হবে- রাজপথে, না মসজিদে?

আজ শুক্রবার রাজধানীতে সমাবেশ করবে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোট। একই দিন হেফাজতে ইসলাম সারা দেশে দোয়া মাহফিলের ডাক দিয়েছে। অন্যদিকে নেতাকর্মীদের মসজিদে অবস্থান করতে বলেছে আওয়ামী লীগ। আর আন্দোলনে মাঠ গরম করতে চায় বিএনপি-জামায়াত। এ পরিস্থিতিতে পুলিশের অবস্থান কোথায় হবে- রাজপথে, না মসজিদে?

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে ১৮ দলকে অনুমতি দিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। এ সুযোগে কেউ বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করলে পুলিশও কঠোর অবস্থান নেবে বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সকালে দলীয় এক সভায় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, বিভিন্ন জায়গা থেকে বিএনপি-জামায়াত সন্ত্রাসীরা ঢাকা ও তার আশপাশের মসজিদগুলোতে অবস্থান নিচ্ছে। তারা নামাজ পড়ার আড়ালে যাতে মসজিদে বসে কুরআন-সুন্নাহবিরোধী অপপ্রচার চালাতে না পারে, সে জন্য তিনি আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের শুক্রবার মসজিদগুলোতে অবস্থানের নির্দেশ দিয়েছেন।

এদিকে চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে এক সমাবেশে হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী সারা দেশের সব কওমি মাদ্রাসায় শুক্রবার বাদ জুমা খতমে ইউনুছ পাঠ এবং দোয়া মাহফিল করতে দেশের ওলামাদের প্রতি আহ্বান জানান।

আল্লাম শফী বলেন, সারা দেশের আলেম-ওলামা, তাওহিদি জনতাকে শহীদ করেও কওমি মাদ্রাসার নিয়ন্ত্রণ নিতে পারবে না কেউ। এ ধরনের যেকোনো ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত প্রতিহত করতে দেশের ওলামায়ে কেরাম শহীদ হতে প্রস্তুত বলে ঘোষণা দেন তিনি।

এমন উত্তেজনাকর পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ডিএমপির কমিশনার বেনজির আহমেদ হুঁশিয়ারি করে বলেছেন, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা হলে পুলিশ সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।