আলমারিতে লাইসেন্স করা পিস্তল লোড করা আছে, আমি আত্মহত্যা করবো: এরশাদ

আত্মহত্যা করার হুমকি দিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। সুজাতা সিং চলে যাওয়ার পর র‌্যাব-পুলিশ গ্রেপ্তার উদ্দশ্য নিয়ে এরশেদের বাসবভন ঘিরে রাখায় তিনি এ ধরণের মন্তব্য করেন বলে জানা যায় । একই সঙ্গে নির্বাচন বর্জনের সিদ্ধান্ত থেকে একচুলও নড়বেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

বুধবার রাত সোয়া ১১টার দিকে বারিধারার বাসভবনে উপস্থিত সাংবাদিকদের এ কথা বলেন এরশাদ। এসময় তিনি নাইটগাউন পরে ছিলেন। তার বাসভবন প্রেসিডেন্ট পার্ক এখনো আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ঘিরে রেখেছে।

উল্লেখ্য, নির্বাচন করার ঘোষণা দিয়ে অন্তর্বর্তীকালীন সরকারে যোগ দিলেও গত মঙ্গলবার নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন ক্ষমতাসীন মহাজোটের সাবেক শরিক জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদ। বুধবার বিকেলে নিজ বাসভবনে ভারতীয় পররাষ্ট্র সচিব সুজাতা সিংয়ের সঙ্গে বৈঠক শেষে পূর্বনির্ধারিত ব্রিফিংয়ে তিনি তার অবস্থানে অনড় থাকার কথা জানান এবং দলের মন্ত্রীদের পদত্যাগ করার নির্দেশ দেন।

সুজাতা সিং চলে যাওয়ার পরই এরশাদের বাসভবন ঘিরে রাখে অতিরিক্ত র‌্যাব ও পুলিশ। অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন এরশাদ। তখন শীর্ষ নেতা ও উপদেষ্টাদের নিয়ে বৈঠকে বসেন তিনি। অবশেষে রাত সোয়া ১১টায় সাংবাদিকদের সামনে এসে অনেকটা ‘বেপরোয়া’ভাবে কথা বলেন।

নির্বাচন বর্জনের সিদ্ধান্তের প্রসঙ্গে এরশাদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘এটা হচ্ছে আমার জীবনের শেষ প্রমিজ (প্রতিশ্রুতি), একচুলও নড়বো না। র‌্যাব পুলিশ যদি আমাকে কিছু করেতে আসে তাহলে আগুন জ্বলবে।’

আশেপাশের নেতাকর্মীদের দেখিয়ে তিনি বলেন, ‘এরা সবাই আমার সন্তান। আমাকে গ্রেপ্তার করতে হলে সবাইকে গুলি করে মেরে যেতে হবে। সেরকম হলে আমার আলমারিতে লাইসেন্স করা পিস্তল লোড করা আছে, আই উইল কমিট সুইসাইড, আমি আত্মহত্যা করবো। আমি যে সিদ্ধান্ত নিয়েছি তা একা নিয়েছি। আমার আশেপাশে কেউ ছিল না। আমরা এ সিদ্ধান্ত রক্ষা করবো।’

আওয়ামী লীগের সঙ্গে জোট সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘আমার নিজস্ব রাজনৈতিক আদর্শ আছে। আমি তাদের মহাজোটে নেই।’

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।