ইতিহাসের সবচেয়ে নিম্নমানের স্বৈরাচার হাসিনা সরকার: কাদের সিদ্দিকী

ইতিহাসের সবচেয়ে নিম্নমানের স্বৈরাচার হাসিনা সরকার  বলে মন্তব্য করেছেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে পেশাজীবী সম্মিলিত পরিষদ আয়োজিত পেশাজীবী সমাবেশে তিনি একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে কাদের সিদ্দিকী বলেন, “ইতিহাসের স্বৈরাচারী সরকারদেরও আপনি হার মানিয়েছেন। ২৪ জানুয়ারির পর ক্ষমতা থেকে সড়ে না দাঁড়ালে আপনি আপনার মন্ত্রী ও চেলাদের অস্তিত্ব বাংলার মাটিতে থাকবে না। দেশ ছেড়ে আপনাদের পালাতে হবে। কারণ লুটেরার জায়গা বাংলাদেশে হতে পারে না।”

কাদের সিদ্দিকী বলেন, “এদেশের মানুষ আর আপনাকে সহ্য করবে না। তারা আর এক মুহূর্তও আপনাকে ক্ষমতায় দেখতে চায় না।”

নির্বাচনের আগে ৩০০ আসনে ১৫৪ জন প্রার্থীর বিজয় বিয়ের আগে সন্তান হওয়ার শামিল মন্তব্য করে কাদের সিদ্দিকী বলেন, “এটা দেখে সারাবিশ্ব ছি ছি করছে।”

জনসাধারণের উদ্দেশে কাদের সিদ্দিকী বলেন, “নিষ্ঠার সঙ্গে আন্দোলন করলে জয় অবশ্যম্ভাবী।”

তিনি বলেন, “শেখ হাসিনা সরকার দেশকে দোজখে পরিণত করেছে। আর খালেদা জিয়া এই দোজখ থেকে দেশকে রক্ষা করতে পারলে আল্লাহ তার পূর্বের ভুল ক্ষমা করে দেবেন।”

বিএনপির উদ্দেশ্যে কাদের সিদ্দিকী বলেন, “ক্ষমতায় যাওয়ার লালায়িত লোভীদের দ্বারা দেশে কখনো শান্তি আসতে পারে না। তাই ক্ষমতার লোভ পরিহার করে দেশরক্ষায় ক্ষমতায় যাওয়ার চেষ্টা করুন।”

বিএফইউজের একাংশের সভাপতি রুহুল আমিন গাজীর সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারার সভাপতি এক কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, ব্যারিস্টার রফিক-উল-হক, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এনাম আহমেদ চৌধুরী, গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সভাপতি আ.স.ম আব্দুর রব, সংগঠনের সদস্য সচিব এ জেড এম জাহিদ হোসেন, কল্যাণ পার্টির চেযারম্যান মেজর অব. সৈয়দ মুহাম্মাদ ইব্রাহিম, চলচ্চিত্রকার চাষী নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।