নৌকা মার্কায় ভোট দিলে ভবিষ্যতে কুঁড়েঘর হবে টিনের: প্রধানমন্ত্রী

আগামী দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিলে ভবিষ্যতে দেশে কোনো কুঁড়েঘর থাকবে না, সেগুলো অন্তত টিনের ঘর হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার রংপুরের পীরগঞ্জে খালাস পীরে তরফ মৌজা উচ্চবিদ্যালয় মাঠে নির্বাচনী এক জনসভায় শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “২০০৮ সালের মতো এবাররো আপনারা নৌকা মার্কায় ভোট দেবেন বলে আমি আশা রাখি।এ জন্য অনেক কষ্ট করে আমি আপনাদের কাছে এসেছি। নৌকা মার্কায় ভোট দিলে ভবিষ্যতে দেশে কোনো কুঁড়েঘর থাকবে না। অন্তত টিনের ঘর হবে। তাই আপনারা একটু কষ্ট করে হলেও এবার ভোটকেন্দ্রে গিয়ে নৌকা মার্কায় আমাকে ভোট দিন।”

তিনি বলেন, “তারা গরিবের কল্যাণ চায় না। তার লুটপাট বোমা হামলায় ব্যস্ত। গরিবের পেটে লাথি মারতে দিনের পর দিন হরতাল অবরোধ দিচ্ছেন। বিরোধী দলীয় নেতা গরিবের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। গরিব বাঁচুক তা তারা চায় না। গরিবের পেটে তারা লাথি মারছে, তাদের কাজ করে খেতে দিচ্ছে না। এটা বন্ধ করতে হবে।”

খালেদা জিয়া যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে পারবেন না উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, “আগামীতে ক্ষমতায় গেলে আমরা জামায়াত-শিবিরের বিচার শেষ করব। ইতিমধ্যে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু হয়েছে। কাদের মোল্লার ফাঁসির রায় কার্যকর হয়েছে।”

মঙ্গলবার সকালে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনী সফরে রংপুরে আসেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।