নির্বাচনে গণতন্ত্রের বিজয়, স্বাধীনতা বিরোধীদের পরাজয়: হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী  শেখ হাসিনা বলেছেন, “গতকাল বহুল আলোচিত জাতীয় সংসদ নির্বাচন হয়েছে। বিরোধী দলের সহিংসতা, বোমাবাজি প্রত্যাখ্যান করে জনগণ ভোট দেয়ায় দলের পক্ষ থেকে আন্তরিক অভিনন্দন জানাচ্ছি। এতো বোমাবাজির মধ্যেও সাহস নিয়ে তারা ভোট দিয়েছেন। এ নির্বাচনে বিজয় হয়েছে গণতন্ত্রের। পরাজয় হয়েছে স্বাধীনতা বিরোধীদের।”

সোমবার বিকেল সাড়ে চারটায়  প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। গণভবনের খোলা মাঠে এ সংবাদ সম্মেলনে দেশী-বিদেশী সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, “নির্বাচনের প্রাক্কালে আমি গণতন্ত্র ও জাতির শান্তি এবং দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য বিরোধী দলকে সন্ত্রাস ও সহিংসতা পরিহার করে রাজনৈতিক সমঝোতার জন্য বারবার আহ্বান জানিয়েছি। কিন্তু তারা আসেনি।আমি বিরোধী দলের সম্মানিত নেত্রীসহ সবাইকে আবার আহ্বান জানাই, সন্ত্রাস ও সহিংসতা পরিহার করে যুদ্ধাপরাধী ও জঙ্গিবাদী জামায়াতের সঙ্গ ত্যাগ করে শান্তিপূর্ণ আলোচনায় আসুন।”
প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আগামী নির্বাচন সম্পর্কে আলোচনা করেই সমাধান করা হবে। সেজন্য সবাইকে ধৈর্য ধরতে হবে, সহনশীল হতে হবে এবং সবধরনের রাজনৈতিক সহিংসতা বন্ধ করতে হবে।”

প্রসঙ্গত, প্রধান বিরোধীদল বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোটের অনুপিস্থিতে রোববার দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচনের আগে ১৫৩ আসনে একক প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হওয়ায় রোববার ১৪৭টি আসনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে শতাধিক আসনে বেসরকারিভাবে জয়ী হয়েছে আওয়ামী লীগ। এদিকে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবিতে আন্দোলনরত বিরোধী দলের লাগাতার কর্মসূচির মধ্যে নির্বাচন সম্পন্ন করেছে সরকার। তবে নির্বাচন বাতিলে দাবিতে পূর্ব ঘোষিত লাগাতার অবরোধের পাশাপাশি সোমবার সকাল ৬টা থেকে ৪৮ ঘণ্টার হরতাল ডেকেছে ১৮ দলীয় জোট।

সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত, এইচটি ইমাম, গওহর রিজভী, ইউসুফ হোসেন হুমায়ূন। সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যদের মধ্যে রয়েছে ওবায়দুল কাদের, লতিফ সিদ্দিকী, ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন, সতীশ চন্দ্র। মহাজোট নেতাদের মধ্যে ছিলেন হাসানুল হক ইনু। এছাড়া ডা. দীপু মনি, সাহারা খাতুন, ড. হাছান মাহমুদ, অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলামসহ আওয়ামী লীগের ঢাকায় উপস্থিত নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।