রায়পুরে ছাত্রলীগ কর্মীর কব্জি কেটে নিল শিবির নেতা, উত্তেজনা

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে একটি বাঁশ কাটাকে কেন্দ্র করে জাহিদ হোসেন ভূইয়া (২৪) নামের এক ছাত্রলীগ কর্মীকে কুপিয়ে তার ডান হাতের কজ্বি কেটে নিয়েছে মনির (৩২) নামের এক শিবিরের নেতা। এসময় এগিয়ে আসলে আরও ৫জন পিটিয়ে আহত করে। জাহিদ ওই এলাকার মোতাহের হোসেন ভূইয়া ছেলে ও ছাত্রলীগ কর্মী। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার বিকেলে উপজেলার চরবামনীর মধ্যকলাকোপা এলাকার হাজিরহাট নামকস্থানে।

 
স্থানীয় লোকজন গুরুতর জখম জাহিদুলকে প্রথমে নোয়াখালী সদর হামপাতালে পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়েছে। এঘটনায় সন্ধ্যায় রায়পুর থানায় শিবির নেতা মনিরসহ ৭জনকে আসামী করে মামলা করা হয়েছে। এঘটনায়ল এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

 
মামলার এজাহার সূত্রে জানান যায়, চরবামনী গ্রামের মোতাহার হোসেন ভূইয়ার ছেলে ও  ঢাকা গুলশানের এইউআইবি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ শেষে বর্ষের ছাত্র জাহিদ শুক্রবার বিকেলে ঘটনার সময়  একই এলাকার মজিবুল হকের ছেলে শিবির নেতা মনিরের এলাকায় বাঁশ কিনতে যায়। এসময় পূর্বশত্রুতার জের ধরে জাহিদকে ধারালো ছেনি দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে তার ডান হাতের কজ্বি কেটে দেয় শিবিরনেতা মনিরসহ কয়েকজন। এসময় জাহিদকে উদ্ধারে এগিয়ে আসলে একই এলাকার কিরন, শাহিন, শাহাদাত, মহিন ও রহমানসহ ৫জনকেও পিটিয়ে আহত করে। পরে স্থানীয় লোকজন জাহিদকে উদ্ধার করে রায়পুর-নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিলে অবস্থার অবনতি হওয়া ডাক্তার তাকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরন করে। আহত অন্যরা স্থানীয় কিনিকে চিকিৎসা নিয়েছে।

 
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সালেহ আহমেদ জানান, এলাকায় চুরি-ডাকাতি ও মাদক রোধে স্থানীয় যুবকরা সমাজ কল্যান সংস্থা নামের একটি কাব করার জন্য জাদিনসহ কয়েকজন বাঁশ কিনতে গিয়েছিল। কিন্তু এঘটনায় তিনি অপরাধিদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন।

 
এঘটনায় যোগাযোগ করা হলে অভিযুক্ত শিবিরের নেতা মনিরসহ জড়িতরা পলাতক থাকায় তাদের বক্তব্য জানা যায়নি। তবে তাদের পরিবারও কোন মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।
রায়পুর থার উপ-পরিদর্শক আবুল বাসার বলেন, এঘটনায় জাহেদা বেগম বাদী হয়ে মনিরসহ ৭জনকে আসামী করেছেন। আসামীদেকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।