খালেদা জিয়া সাথে কোনো সংলাপ নয়, খালেদা জিয়া গণতন্ত্রের কেউ নন: ইনু

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, “নাশকতা, জঙ্গিবাদ ও যুদ্ধাপরাধীদের সমর্থক খালেদা জিয়ার সঙ্গে গণতন্ত্রের সংলাপ হতে পারে না। খালেদা জিয়া জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতার পৃষ্টপোষকতা দিয়ে চক্রান্তের জাল বুনছেন। জঙ্গিবাদকে সমর্থন দেয়ায় খালেদা জিয়া গণতন্ত্রের ক্লাব থেকে সরে গেছেন। তিনি গণতন্ত্রের কেউ নন।”

শনিবার দুপুরে ময়মনসিংহ জেলা পরিষদের ভাষা শহীদ আব্দুল জব্বার মিলনায়তনে সুধী সমাবেশ ও জাসদের বৃহত্তর ময়মনসিংহ অঞ্চলের প্রতিনিধি সভায় তিনি এসব কথা বলেন। তথ্যমন্ত্রী বলেন, “যেসব বুদ্ধিজীবী জঙ্গিবাদী, যুদ্ধাপরাধী, সাম্প্রদায়িক লুটেরা চক্রের সঙ্গে মিটমাটের প্রস্তাব দেন তারা কার্যত গণতন্ত্রের নামে জঙ্গিবাদীদের রক্ষা করার চেষ্টা করছেন।”

তিনি বলেন, “বেগম খালেদা জিয়া ও কিছু বুদ্ধিজীবী সংলাপের কথা বলছেন, সমঝোতার কথা বলছেন। সমঝোতা আমরাও চাই। অতীতে সমঝোতা করেছি । অতীতে যারা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা করেছিলো, অতীতে যারা যুদ্ধাপরাধী, সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গিবাদের সঙ্গে ছিল এখনো তারাই সেটাকেই সমর্থন করছে।

 

আমরা বলবো ওরা রাজনৈতিক শয়তানি ছাড়েনি, ক্ষমা চায়নি, তওবা করেনি, ভুল স্বীকার করেনি। সুতরাং এই জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতার পক্ষের রাজনৈতিক শয়তানদের সঙ্গে কোনো মিটমাট হতে পারে না। কেননা গণতন্ত্রের সঙ্গে জঙ্গিবাদের, গণতন্ত্রের সঙ্গে সাম্প্রদায়িকতার, গণতন্ত্রের সঙ্গে নাশকতার, গণতন্ত্রের সঙ্গে সহিংসতার কোনো সমঝোতার সুযোগ নেই। ওদেরকে দমন করতে হয়, কেউটে সাপের বিষ দাঁত ভেঙে দিতে হয়। যেমন করে পাকিস্তানিদের বিষদাঁত ১৬ ডিসেম্বরে ভেঙে দেয়া হয়েছিলো।”
তথ্যমন্ত্রী বলেন, “এখনো যুদ্ধাপরাধীদের বিচার এবং সাজা সম্পূর্ণ রূপে শেষ হয়নি। সাম্প্রদায়িকতার ঘাটি-খুটি চূড়ান্তভাবে শেষ হয়নি। দেশ এখনো বিপদমুক্ত হয়নি। আমাদের পদক্ষেপের কারণে জঙ্গিবাদী যুদ্ধাপরাধীরা কিছুটা পিছু হটেছে। কিন্তু দমে যায়নি। খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে জামায়াতিরা চক্রান্ত করছে। দেশকে অস্থিতিশীল এবং গণতন্ত্রকে ধ্বংস করে দিতে এরা তৎপরতা চালাচ্ছে। এদের সমূলে উৎপাটন করতে চুড়ান্ত ধাক্কা দিতে হবে।”

মন্ত্রী বলেন, “মহাজোটের ছাতার তলে কিছু দলবাজি ও বাড়াবাড়ি রয়েছে, আমরা জাসদ মনে করি আইনের শাসন কায়েম করতে বাড়াবাড়ি বন্ধ করতে হবে। যারা বাড়াবাড়ি করছে তাদের প্রত্যেককে শেখ হাসিনার সরকার আইনের কাঠগড়ায় দাঁড় করাচ্ছেন। জাসদ সামনে থেকে সেই বাড়াবাড়ি বন্ধ করে দেবে।”

ময়মনসিংহ জেলা জাসদের সভাপতি অ্যাডভোকেট গিয়াস উদ্দিনের সভাপতিত্বে এতে আরো বক্তব্য দেন জাসদের স্থায়ী কমিটির সদস্য শিরীন আক্তার এমপি, কেন্দ্রীয় নেত্রী লুৎফা তাহের এমপি, জাসদের সাংগঠনিক সম্পাদক শওকত রায়হান, নারী জোটের সভাপতি আফরোজা হক রিনা, জেলা জাসদের সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট সাদিক হোসেন, জাসদ নেতা অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম চুন্নু, অ্যাডভোকেট শিব্বির আহমেদ লিটন প্রমুখ। প্রতিনিধি সভায় জাসদের বৃহত্তর ময়মনসিংহের ছয় জেলার  নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।